‘ওই গদ্দার ছাড়া সবার বিরুদ্ধে সিপিএম কেস দিয়েছিল,’ নন্দীগ্রামে ফের তোপ মমতার

গতকাল নন্দীগ্রামের(Nandigram) জনসভা করে অধিকারী পরিবারের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তুলেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার ঠাকুরচকের জনসভা থেকে নন্দীগ্রাম আন্দোলনে অধিকারী পরিবারের বেইমানির প্রমাণ তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়ে দিলেন, ‘নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সময় সমস্ত আন্দোলনকারী এবং সাধারন মানুষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিল তৎকালীন বাম সরকার, শুধু ওই গদ্দার ছাড়া। তার কারণ তলে তলে সিপিএমের গুন্ডাদের সাহায্য করে গিয়েছিল ও।’

দ্বিতীয় দফার মহাযুদ্ধে নজরে এখন নন্দীগ্রাম(Nandigram)। শেষ বেলায় সেখানেই প্রচারে ঝড় তুলতে মাঠে নেমেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। সোমবার নন্দীগ্রামের ক্ষুদিরাম মোড় থেকে ঠাকুরচক পর্যন্ত রোড শো করেন মমতা বন্দোপাধ্যায়ের এরপর ঠাকুরচকে এক জনসভায় উপস্থিত হয়ে মমতা বলেন, ‘দোষ আমার। যে ছেলেটাকে এতো কিছু দিয়েছি। তার ভাই তার বাবাকে এতো কিছু দিয়েছি, এখন অনেক টাকা হয়ে গেছে আর সেই টাকা বাঁচাতে বিজেপিতে গিয়েছে।’ পাশাপাশি নন্দীগ্রাম আন্দোলন প্রসঙ্গে বলেন, ‘নন্দীগ্রামে যখন প্রথম আন্দোলন ছিল কে ছিল আপনাদের পাশে, বাপ-ব্যাটাকে দেখা যায়নি, ১৫ দিন পরে এসেছে।’ পরে গুরুতর অভিযোগ তুলে বলেন, ‘সবার বিরুদ্ধে সিপিএম কেস দিয়েছিল শুধু এই গদ্দারবাবুর বিরুদ্ধে দেয়নি। কারণ ওই গদ্দার ডেকে এনেছিল সিপিএমের গুন্ডাদের, পুলিশ ঢুকিয়েছিল নন্দীগ্রামে’।

আরও পড়ুন:মূল রাস্তা ছেড়ে নন্দীগ্রামে চেনা মেঠো পথে মমতা, দীর্ঘ রোড-শোতে উৎসাহী জনতার ঢল

একই সঙ্গে গতকাল বিরুলিয়ায় অশান্তি প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বিজেপির গুন্ডারা ওখানে গুন্ডামি করতে এসেছিল। একটা ছেলের হাত ভেঙে দিয়েছে, আমাদের ছেলেরা গুন্ডাদের বাইক আটকেছে। গুন্ডামি করে কারা যে দেখে জেতার আশা নেই, ম্যাচ শুরুর আগেই হেরে বসে আছে, সবার গুন্ডামির প্রয়োজন পড়ে না।’ তিনি বলেন এই কদিনে আমাদের তিন জন কর্মী খুন হয়েছে বিজেপির হাতে। অথচ কোচবিহারে একজন বিজেপি নেতা সুইসাইড করেছিল, তার জন্য ১০ কিলোমিটার মিছিল করল ওরা অথচ আমাদের বিচার হলো না। এছাড়াও রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘বিজেপিকে ভোট দিলে আপনাকে দেশ ছাড়া হতে হবে, বাইরের গুন্ডারা বাংলা দখল করবে, আর তৃণমূলকে ভোট দিলে দুয়ারে দুয়ারে রেশন পৌঁছে দেবে সরকার।’

Advt