ভোট প্রচারের শেষলগ্নে নেত্রীতেই ভরসা নন্দীগ্রামের

প্রচণ্ড গরম, তার মধ্যেই ভোট প্রচারের শেষলগ্নে যেন ফুটছে নন্দীগ্রাম। একজনের প্রচারে হাজির হলেন দুই তারকা প্রচারক। অন্য জনের মঞ্চে তারকা নেই। শুধু তিনিই আছেন। শুভেন্দুর হয়ে প্রচার করলেন অমিত শাহ, বিকেলে হাজির হলেন মিঠুন। কিন্তু তৃণমূলের চিত্রনাট্যের কেন্দ্রে শুধুই মমতা। তাই তারকা প্রচারক না, প্রার্থী ও নেত্রীতেই ভরসা রাখছে দল। এ ভাবেই এতদিনের টানটান প্রচারের শেষ দৃশ্যের চিত্রনাট্য ।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার প্রচার কর্মসূচি শুরু করেন সকাল ১২টায়। নন্দীগ্রামের ভেটুরিয়া বাজার থেকে রায়পাড়া পর্যন্ত রোড শো করেন তিনি। নন্দীগ্রামে রোড শো-এর পরে ডেবরায় একটি রোড শো করেন অমিত।
মঙ্গলবার অভিযোগ ওঠে, নন্দীগ্রামে এক বিজেপি সমর্থকের স্ত্রীকে ধর্ষণ করে খুন করার চেষ্টা করা হয়েছে।
নন্দীগ্রামে ভোটের ফল কী হতে পারে, সেই বিষয়েও বেশ আত্মবিশ্বাসী অমিত। তিনি দাবি করলেন, ‘‘সাধারণ মানুষ সবই দেখছেন। তাঁরা ভোটের বাক্সে এর জবাব দেবেন। নন্দীগ্রামে বিজেপি প্রার্থী বিপুল ভোটে জয় পাবেন।’’
নন্দীগ্রামে শেষ কয়েকদিন ধরে ছোট ছোট অনেকগুলি সভা করছেন মমতা। মঙ্গলবার নন্দীগ্রাম ব্লক ১, ভেকুটিয়ায় সভা করেছেন তিনি। একটি মিছিলও করেছেন।
সোমবার নন্দীগ্রামের সভা থেকে অধিকারী পরিবারকে আক্রমণ করেছিলেন তিনি। অভিযোগ করেছিলেন, শুভেন্দু ইচ্ছা করে তাঁর পা ভেঙে দিয়েছেন। সোনাচুড়া, বাঁশুলি চক লক গেটের সভা থেকেও অধিকারীদের আক্রমণ করলেন মমতা। বললেন, ‘‘হাজার হাজার টাকা চুরি করেছে গদ্দার। আজ আমি যখন একবার নন্দীগ্রামে ঢুকেছি, তখন আর বেরবো না।’’
নন্দীগ্রামে পরিস্থিতি যতই উত্তপ্ত হোক, দলীয় কর্মীদের মাথা ঠাণ্ডা রাখতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।
তিনি বললেন, ‘‘৪৮ ঘণ্টা মাথা ঠাণ্ডা রাখুন। ভাল করে ভোট দিন। ভোটের সময় কোনও অশান্তি, দাঙ্গায় যাবেন না।’’
একেবারে শেষ অর্ধে তৃতীয় সভাটি করবেন তিনি। এখন অপেক্ষা এপ্রিল পয়লার।

Advt