“ভোট শতাংশেই স্পষ্ট বাংলা ‘আসল পরিবর্তন’ চাইছে”, হুগলির সভায় দাবি নাড্ডার

প্রথম দফার নির্বাচন শেষ হয়েছে ইতিমধ্যে আগামীকাল দ্বিতীয় দফার নির্বাচন হাইভোল্টেজ কেন্দ্র নন্দীগ্রামে(Nandigram)। এরই মাঝে তৃতীয় দফার নির্বাচনকে মাথায় রেখে বুধবার এরাজ্যে পা রেখেছেন জেপি নাড্ডা(JP nadda)। এদিন হুগলির(Hooghly) ধনেখালি এলাকায় জনসভা ছিল বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির(BJP President)। সেখানেই চাঁচাছোলা ভাষায় তৃণমূলকে আক্রমণ করার পাশাপাশি নাড্ডা জানিয়ে দিলেন, প্রথম দফার নির্বাচনে যে বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশগ্রহণ করেছেন তাতেই বোঝা যায় বাংলার মানুষ পরিবর্তন চাইছে।

হুগলির ধোনেখালিতে বিজেপির জনসভায় উপস্থিত হয় তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ শানান জেপি নাড্ডা। তিনি বলেন, ‘বাংলা জুড়ে ভয়ের পরিবেশ বানিয়েছে তৃণমূল। তৃণমূলের গুন্ডারা গণতন্ত্রের কণ্ঠ রোধের চেষ্টা করছে। এই ভোটই আসল পরিবর্তনের সংকল্প নেওয়ার ভোট। এই নির্বাচন সোনার বাংলা বানানোর নির্বাচন।’ একই সঙ্গে তাঁর দাবি, ‘এই নির্বাচন আসল পরিবর্তনের জন্য। প্রথম দফার তৃণমূলের সন্ত্রাস উপেক্ষা করে ৮৯ শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছে। এর থেকেই বোঝা যায় মানুষ পরিবর্তন চায়।’ এছাড়াও নির্বাচনী উৎসবে তৃণমূলের জনপ্রিয় স্লোগান খেলা হবে কে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি নাড্ডা। তিনি বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে তাই মমতা ভয় পেয়েছেন, নির্বাচন কমিশনে গিয়েছে তৃণমূল। খেলা শেষ হয়েছে, খেলা শেষ , কমলে ছাপ, তৃণমূল সাফ।’

আরও পড়ুন:হামলার জেরে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা ময়নার বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দা’র

এ পাশাপাশি ভবানীপুর ছেড়ে এবার নন্দীগ্রাম কেন্দ্র থেকে মমতার লড়াইকে কটাক্ষ করে জেপি নাড্ডা বলেন, ‘ভবানীপুর থেকে নন্দীগ্রামে কেন গেলেন মমতা, মুখ্যমন্ত্রী যদি মন্ত্রীর বিরুদ্ধে লড়তে যান তাহলে বড় নেতা কে? নন্দীগ্রামে হারবেন মমতা।’ যদি ওনার এই দাবিকে বহু আগেই ফুৎকারে উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। তৃণমূলের তরফে জানানো হয়েছে নন্দীগ্রাম থেকে ১ লক্ষেরও বেশি ভোটের ব্যবধানে এবার জিততে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি বেশি ভোট মানে বিজেপির জয় এই তথ্য খারিজ করে তৃণমূলের তরফে পরিসংখ্যান তুলে ধরে জানানো হয়েছে, ‘যেখানে বেশি সংখ্যক মানুষ নির্বাচনে অংশ নেন পুরনো সংখ্যাতত্ত্বের হিসেব করলে দেখা যাবে সেখানে শাসক দলের জয়ের সম্ভাবনা অনেকখানি বেড়ে যায়।’

Advt