মোদি-শাহ-শুভেন্দুর “এক্সিট পোল” ফলস? নন্দীগ্রাম বলছে জিতছে দিদি

প্রায় ৪৮ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও ভোটবঙ্গে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে সেই নন্দীগ্রাম (Nandigram)। কে জিতবেন? মমতা (Mamata Banerjee) নাকি শুভেন্দু (Suvendu Adhikari)? ঘাসফুল নাকি পদ্মফুল? এমন প্রশ্ন-আলোচনা চলছেই! একুশের হাইভোল্টেজ নির্বাচনে (Assembly Election) সবচেয়ে হাইভোল্টেজ কেন্দ্র নন্দীগ্রাম। তাই শুধু রাজ্য নয়, রাজ্যের সীমানা পেরিয়ে গোটা দেশ-দুনিয়ার নজর নন্দীগ্রামে। তাই সেখানে ভোট সাঙ্গ হওয়ার পরও প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, শুভেন্দু অধিকারী থেকে শুরু করে সকলের মুখে শুধুই নন্দীগ্রাম।

ভোটের দিন সকাল সাড়ে সাতটার সময় শুভেন্দু ঘোষণা করেছেন তিনি জিতেছেন, হারছেন “বেগম”! আবার ওইদিনই দুপুরে রাজ্যে ভোট প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী মোদির “এক্সিট পোল” বলছে, “দিদি হেরে গেছেন নন্দীগ্রামে”! একই কথা অমিত শাহ থেকে শুরু করে বিজেপির ছোট-বড়-মেজো নেতাদের মুখেও।

কিন্তু খোদ নন্দীগ্রাম কী বলছে?

ভোটের পরদিন নন্দীগ্রাম বলছে, “জিতেছে দিদিই”! নন্দীগ্রাম-১ ও ২ ব্লক নিয়ে বিধানসভা কেন্দ্র। এবং দুটি ব্লকের চরিত্র সম্পূর্ণ আলাদা। চায়ের দোকান থেকে পাড়ার মোড়, সর্বত্র প্রায় একটাই কথা, ভোটের যা গতিপ্রকৃতি তাতে যে যতই লাফালাফি করুন না কেন, ভোট পড়েছে মমতার পক্ষেই। দিদির জয়ের মার্জিন কমপক্ষে ২৫ হাজার। এদিকে, তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, নন্দীগ্রাম-১ থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিড পাবে ৩০ হাজার। নন্দীগ্রাম-২ ব্লকেও লিড মিলবে। ফলে জয়ের মার্জিন ৫০ হাজারের কাছাকাছি গেলে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

আরও পড়ুন-বিজেপির “স্টার ক্যাম্পেনার” মিঠুনের ছায়াসঙ্গী নিখরচায় চিকিৎসা পেলেন মমতার স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে

কিন্তু কোন অঙ্কে তৃণমূল দাবি করছে জিতেছে দিদিই?

নন্দীগ্রাম-১ ব্লকে চারটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ৩০টি বুথে বিজেপি পোলিং এজেন্টই বসাতে পারেনি। তা নিয়ে বিজেপি হইচইও করেনি। কারণ ওই এলাকায় ওদের এজেন্ট হওয়ার লোকই ছিল না। সেটা বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী ভালোই জানতেন। তাই ভোটের দিন সকাল থেকেই বিজেপি কর্মীদের মনোবল যাতে ভেঙে না পড়ে, সেই কারণে একটা নাটকীয় হাসি হেসে শুধু বলে বেড়াচ্ছিলেন, তৃণমূল ৮০ থেকে ১০০টি বুথে এজেন্ট বসাতে পারেনি।

কেন্দামারি-জালপাই পঞ্চায়েতে ২৬টির মধ্যে ১৫টি, দাউদপুরে ৬টি, কালীচরণপুরে ৪টি, মহম্মদপুরে ৬টি বুথে বিজেপির কোনও পোলিং এজেন্ট ছিল না। ভোটাররা রাত পর্যন্ত ভোট দিয়েছেন। সংখ্যালঘু ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ততা ছিল ব্যাপক। নন্দীগ্রামের মাটিতে পদ্মফুলের ভরাডুবি নিশ্চিত বলে দাবি করেছেন চর কেন্দামারির বাসিন্দারা। এবং শুভেন্দু নিজেও সেটা ভালো জানেন বলে দাবি এখানকার মানুষের।

নন্দীগ্রাম-২ ব্লকে সিপিএম প্রার্থী মীনাক্ষী মুখার্জি ভালো ভোট টানবেন। যদিও মীনাক্ষি জিততে পারবেন না। তবে মমতা আর শুভেন্দুর লিড নন্দীগ্রাম-২ ব্লকে অনেকটাই কমিয়ে দেবেন। নন্দীগ্রাম- ব্লকে একতরফা তৃণমূলের পক্ষে একতরফা ভোট হলেও ২ ব্লকে মূলত ত্রিমুখী লড়াই হয়েছে। এবং সেই সমীকরণে এখান থেকে লিড পাবেন মমতাই। সব মিলিয়ে নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর জয় ১০০ শতাংশ নিশ্চিত বলে দাবি তৃণমূল ও নন্দীগ্রামবাসীর একটা বড় অংশের মানুষদের।

Advt