সংখ্যালঘুদের পাকিস্তানি বলা হচ্ছে, কমিশনের কাছে জবাব চাইলেন মমতা

ভোটবঙ্গে রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে। এবার বাংলার হাইভোল্টেজ নির্বাচনে উন্নয়ন নয়, ধর্মীয় মেরুকরণ তুঙ্গে। রাজ্যে চতুর্থ দফা নির্বাচনের আগে ভোটবঙ্গে সেটাই সবচেয়ে বড় ইস্যু।

বাংলার ২৯৪ আসনের মধ্যে গোটা দেশের নজর পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামে। সেখানে লড়াই মমতা-শুভেন্দুর।
নন্দীগ্রামে যাঁরা মুসলিমদের পাকিস্তানি বলেছিল, তাঁদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নিয়েছেন! বৃহস্পতিবার‌ হাওড়ার জনসভা থেকে নির্বাচন কমিশন এবং বিজেপিকে একহাত নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্পষ্ট জানিয়ে দেন, বারবার শো-কজ করে বিশেষ লাভ হবে না, একই জবাব দেবেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ৩ এপ্রিল তারকেশ্বরের ও ভাঙড়ে সভায় সংখ্যালঘু ভোট ভাগাভাগি নিয়ে মমতা যে মন্তব্য করেছেন, তাতে নির্বাচনী বিধিভঙ্গ হয়েছে বলে জানিয়ে তৃণমূল নেত্রীকে নোটিশ পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। কমিশনে এই বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েছিল বিজেপি। তারপরই ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মমতার থেকে জবাব তলব করা হয়েছে। এদিন সেই প্রসঙ্গেই তিনি বলেন, ‘‘‌নন্দীগ্রামে মুসলিমদের যাঁরা পাকিস্তানি বলেছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে ক’টা অভিযোগ হয়েছে? খালি তৃণমূলের বিরুদ্ধে সব অভিযোগ?’‌’

আরও পড়ুন- করোনা আক্রান্ত কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন

Advt