সহজে ঘরে ঢুকে যাওয়ার লোক নই, আমি স্ট্রিট ফাইটার: মমতা

প্রচারে নিষেধাজ্ঞা উঠতেই বেরিয়ে পড়লেন তৃণমূল (Tmc) নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Bandopadhyay)। আর দলীয় প্রার্থীদের হয়ে প্রচার সভা থেকে স্পষ্ট জানালেন, “আমি সহজে ঘরে ঢুকে যাওয়ার লোক নই। আমাকে আঘাত করলে আমি প্রত্যাখাত করি”। তিনি বলেন, “বিজেপি (Bjp) শুধু প্রচার করবে। আমি পারব না? জনতা এর বিচার করবে।”

সোমবার রাত আটটা থেকে মঙ্গলবার রাত আটটা পর্যন্ত মমতার প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার, আটটা কুড়ি নাগাদ বারাসতে তৃণমূল প্রার্থী চিরঞ্জিত চক্রবর্তীর (Chiranjit Chakraborty) হয়ে জনসভা করেন মমতা। সেখান থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় আক্রমণ হরেন তৃণমূল নেত্রী। কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “আমায় হারানোর ক্ষমতা ওদের নেই। কারণ আমি শেষ পর্যন্ত রয়েল বেঙ্গল টাইগারের মতো লড়াই করে যাব”।

এরপরেই গেরুয়া শিবিরকে উদ্দেশ্য করে তৃণমূল নেত্রী প্রশ্ন তোলেন, “আমাকে এত ভয় কিসের? এজেন্সি তো তোমাদের হাতে”। এরপরই মমতা বলেন, “এত টাকা খরচ করেও বিজেপি কেন হারবে জানেন? কারণ আমি ‘স্ট্রিট ফাইটার’ (Street Fighter), মাঠে নেমে লড়াই করি, উপর থেকে নির্দেশ দিই না”।

আরও পড়ুন- “পঞ্চমী-ষষ্ঠীতেই ১৪৮-এর ম্যাজিক ফিগার পার করবে তৃণমূল”, দাবি কুণালের

বেছে বেছে বাংলায় ভোটের দিন এসে নরেন্দ্র মোদির প্রচার করছেন। এই বিষয়টি নিয়েও সরব হন মমতা। তিনি বলেন, “উনি প্রধানমন্ত্রী হয়ে কেন প্রত্যেক ভোটের দিন এসে প্রচারে করছেন?” এটা বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন মমতা। বলেন, “প্রয়োজনে আমিও ভোটের দিন প্রচার করব না”।

বারাসত থেকে মমতা যান বিধাননগরে দলীয় প্রার্থী সুজিত বসুর সমর্থনে প্রচারে। সেখানে সভা থেকে তৃণমূল নেত্রী বলেন, “সুজিত কাজের ছেলে। যে কোনও দরকারে পাশে থাকে”। তাঁকে জয়ী করার আহ্বান জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তিনি বলেন, তৃণমূল সরকারের যে উন্নয়নমূলক প্রকল্প রাজ্যে চালু রয়েছে সেগুলিকে সচল রাখতে জোড়া ফুল চিহ্নে ভোট দিতে হবে।

আরও পড়ুন- বড় সিদ্ধান্ত! করোনা রুখতে আগামী ১৫ দিন মহারাষ্ট্রে জারি ‘জনতা কার্ফু’

Advt