Tripura Municipal Elections:  পুরভোটে কোন বুথে কত বাহিনী মোতায়েন? জেনে নিন

কালই ত্রিপুরায় (Tripura Municipal Elections) পুরভোট। ২০ টি থানা এলাকায় ৬৪৪টি ভোটকেন্দ্র। ২৭৪ টি স্পর্শ কাতর বুথ। অতিস্পর্শ কাতর বুথ রয়েছে ৩৭০ টি। এরমধ্যে স্পর্শকাতর বুথ গুলিতে ৪ জন করে সশস্ত্র জাওয়ান থাকবেন। আগরতলার (Agartala) অতি স্পর্শকাতর গুলিতে ৫ জন করে টিএসআর (Tripura State Rifles) থাকবে। এছাড়া যে সমস্ত জায়গায় গুলিতে ভোট হবে সেখানে সকাল থেকেই নাকা চেকিং করা হচ্ছে। চলছে টহলদারিও। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরা প্রশাসনের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর।

আরও পড়ুন: Subramanian Swamy to meet Mamata Banerjee: বড় চমক! বিকেলেই মমতার সঙ্গে বৈঠকে বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী

২৫ নভেম্বর ত্রিপুরায় পুরভোটের (Tripura Municipal Elections) জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে,

▪️ বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ছ’টি নগর পঞ্চায়েত, ৭টি মিউনিসিপাল  কাউন্সিল ও আগরতলা পুরনিগমের ভোট। সব মিলিয়ে ৬৪৪টি পোলিং স্টেশন। যা ২০টি থানার আওতাধীন।

▪️ প্রতিটি বুথে কার্যত স্পর্শকাতর। তাই ৬৪৪টি বুথের মধ্যে ৩৭০টি বুথকে আলাদাভাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এরমধ্যে স্পর্শকাতর বুথ গুলিতে ৪ জন করে সশস্ত্র জাওয়ান থাকবেন। আগরতলার অতি স্পর্শকাতর গুলিতে ৫ জন করে টিএসআর (Tripura State Rifles) থাকবে।

▪️  ভোট পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সেক্টর অফিসার সহ অন্যান্য আধিকারিকদের সঙ্গে সমন্বয় বজায় রেখে কাজ করবে কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনী।

▪️ ভোট শেষ হওয়ার পর স্ট্রং রুমকেও নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হবে। স্ট্রং রুম পাহাড়ায় থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা।

▪️ ভোটের দিন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও এরিয়া ডমিনেশন-এর জন্য ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলের ২৫ জন করে সশস্ত্র পুলিশ সংশ্লিষ্ট ২০টি থানায় সর্বক্ষণ থাকবে।

▪️ প্রতিটি থানার জন্য অতিরিক্ত ৩০ জন করে ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলের জওয়ানদের তৈরি রাখা হয়েছে। তাঁদের সঙ্গে অতিরিক্ত ৫০ কোম্পানি CRPF সমন্বয় রেখে কাজ করবে।

▪️ শুধুমাত্র আগরতলা পুরসভা  ভোটের জন্য অতিরিক্ত ১৫ কোম্পানি CRPF মোতায়েন করা হয়েছে। তৈরি রাখা হচ্ছে QRT টিম। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দ্রুত সেখানে পৌঁছে যাবে এই টিম।

ইতিমধ্যেই বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় সব মিলিয়ে ১২৩টি নাকা চেকিং পয়েন্ট করে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। সন্দেহজনক গাড়ি দেখলেই আটক করা হচ্ছে। ভোটের আগে একাধিক দাগি আসামিকে চিহ্নিত করে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে ত্রিপুরা পুলিশ (Tripura Police) প্রশাসন।

সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) চাপে সব মিলিয়ে পুরভোটের আগে কড়া নিরাপত্তা বলয়ে দুর্গের চেহারা নিয়েছে রাজধানী আগরতলা (Agartala) সহ ত্রিপুরার বিভিন্ন জেলা। উদ্দেশ্য শান্তিপূর্ণ অবাধ ও সুষ্ঠু ভোট।

Previous articleSSC Recruitment : এখনই সিবিআই নয়, একক বেঞ্চের রায়ে স্থগিতাদেশ দিল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ