এবার নির্ভয়া কাণ্ডের ছায়া রাজস্থানে, হাসপাতালে সঙ্কটজনক নাবালিকা

দিনমজুর পরিবারের বিশেষভাবে সক্ষম ওই নাবালিকাকে তিলজারা উড়ালপুলের নীচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা

সেই কলঙ্কিত অধ্যায়ের স্মৃতি এখনও দেশবাসীর মনে টাটকা। ঠিক ধরেছেন, ফের দিল্লি নির্ভয়া কাণ্ডের ছায়া। এবার রাজস্থানের আলওয়ার। নাবালিকাকে গণধর্ষণের পর নৃশংসভাবে তার গোপনাঙ্গে ঢুকিয়ে দেওয়া হল ধারালো অস্ত্র। এখানেই নৃশংসতার শেষ নয়, ছুঁড়ে ফেলে দেওয়া হয় ব্রিজের উপর থেকে। পৈশাচিক ওই কাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পরেই আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে দেশজুড়ে।

জানা গিয়েছে, দিনমজুর পরিবারের বিশেষভাবে সক্ষম ওই নাবালিকাকে তিলজারা উড়ালপুলের নীচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। খবর পেয়েও পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে আলোয়ারের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করে। রক্তক্ষরণ বন্ধের অনেক চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে তড়িঘড়ি জয়পুরের জেএন লোন হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই প্রায় আড়াই ঘণ্টা ধরে অস্ত্রোপচার করা হয়। আপাতত সেখানেই ভর্তি রয়েছে ওই নির্যাতিতা। এখনও বেশ সঙ্কটজনক ওই নাবালিকা।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, নাবালিকার শরীরের অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন অঙ্গ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শরীর থেকে বের করা হয়েছে সেই অস্ত্রটিও। আপাতত আইসিইউ-তে রয়েছে সে। চিকিৎসকদের একটি দল নাবালিকাকে সর্বক্ষণ পর্যবেক্ষণে রেখেছে। তবে এই ঘটনায় অভিযুক্তদের এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার করা যায়নি। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

মুখরক্ষা করতে রাজস্থানের নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী মমতা ভূপেশ জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই অভিযুক্তদের ধরবে পুলিশ। একইসঙ্গে রাজস্থান সরকারের পক্ষ থেকে নির্যাতিতার পরিবারকে ৬ লক্ষ টাকা আর্থিক ক্ষতিপূরণের ঘোষণাও করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:রেল দুর্ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ অভিষেকের, সর্বশক্তি দিয়ে উদ্ধারকার্যে ‘যুবশক্তি’র সদস্যরা

Previous articleরেল দুর্ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ অভিষেকের, সর্বশক্তি দিয়ে উদ্ধারকার্যে ‘যুবশক্তি’র সদস্যরা