Accident Followup: পাত্তা নেই বিজেপির, অভিষেকের নির্দেশে দুর্ঘটনাগ্রস্তদের পাশে যুবশক্তি

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ মতো আহতদের সাহায্যার্থে রক্তদান করছেন তৃণমূল যুবশক্তির সদস্যরা

উত্তরবঙ্গ তাদের ভোটের ঝুলি উপুড় করে দিলেও আপৎকালীন অবস্থায় বিজেপিকে পাশে পায় না তারা। একথা আরও একবার প্রমাণ হল ময়নাগুড়ির ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায়। অথচ দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তৃণমূলের (Tmc) সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Bandyopadhyay)। সিদ্ধান্ত নিতে এতটুকু দেরি করেননি তিনি। তাঁর নেতৃত্বে তৈরি তৃণমূলের যুবশক্তির সদস্যদের পাঠিয়ে দিয়েছেন দুর্ঘটনাস্থলে। উদ্ধার কাজ থেকে শুরু করে হাসপাতালে ভর্তি আহতদের পাশে রয়েছেন যুবশক্তির (Yubashakti) সদস্যরা। এগিয়ে এসে রক্ত দান করছেন। যেকোনো রকম সাহায্যে পাশে দাঁড়াচ্ছেন দুর্ঘটনাগ্রস্ত পরিবারগুলির।

ময়নাগুড়ির দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য (Debanshu Bhattacharya)। হাসপাতালে গিয়ে আহতদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দেবাংশু বলেন, “রেলমন্ত্রী কাছে অনুরোধ এই পুরোনো কোচগুলি চালানো বন্ধ করুন।”

প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট আদায়ই বিজেপির (Bjp) কাজ। ময়নাগুড়ির ভয়াবহ দুর্ঘটনাস্থলে কোনও বিজেপির কর্মী-সমর্থকের দেখা মিলল না। শুধু তাই নয়, দুর্ঘটনাস্থল থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে এক বিজেপি বিধায়ক থাকলেও তিনি শুধুমাত্র মুখ দেখিয়ে চলে যান। অথচ দুর্ঘটনার খবর পেয়েই দেড়শো যুব তৃণমূল কর্মীকে নিয়ে ঘটনাস্থলে রওনা দেন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি প্রকাশ চিক বাড়াইক। গ্রামবাসীদের সঙ্গে উদ্ধার কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েন তাঁরা। ক্ষতিগ্রস্ত রেললাইনের কামরা থেকে আটকে পড়া যাত্রীদের উদ্ধার করেন। আহতদের সঙ্গে নিয়ে অ্যাম্বুল্যান্সে করে তাঁরা পৌঁছন হাসপাতালেও।

আরও পড়ুন:Train Accident: ইঞ্জিনে ত্রুটি থাকার কারণেই কী ট্রেন দুর্ঘটনা? তদন্তে রেল আধিকারিকরা

জলপাইগুড়ি (Jalpaiguri) সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পর পর আহতদের সারি। জলপাইগুড়ি যুব তৃণমূল সভাপতি সৈকত চট্টোপাধ্যায় জলপাইগুড়ি ব্লাড ব্যাঙ্কে পৌঁছে রক্তের ব্যবস্থা করেন। সঙ্কট মেটাতে রক্তদান করেন যুব তৃণমূল কংগ্রেসর কর্মীরা। বাংলার যুব শক্তির সদস্যদের ভূমিকায় প্রশংসায় পঞ্চমুখ আপামর মানুষ।

পাশাপাশি, উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার চেয়ারম্যান পার্থপ্রতিম রায় আহতদের পাশে দাঁড়ান। তিনি সংস্থার বাসে আহত যাত্রীদের হাসপাতালে এবং আটক যাত্রীদের স্টেশনে পৌঁছাতে সাহায্য করেন। মৃত ও আহতদের মধ্যে অনেকেই কোচবিহারের মানুষ। তাঁদের খোঁজ নেন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাকর্মীরা। ঘটনাস্থলে যান তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অভিজিৎ দে ভৌমিক। যুব তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের সহায়তা ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে যুব শক্তির সহায়তার প্রশংসা করছেন সকলে।

Previous articleTrain Accident: ইঞ্জিনে ত্রুটি থাকার কারণেই কী ট্রেন দুর্ঘটনা? তদন্তে রেল আধিকারিকরা