প্রয়াগরাজকাণ্ড: শুক্রবার মানবাধিকার কমিশনের মুখোমুখি তৃণমূল কংগ্রেস

যোগীরাজ্যে প্রয়াগরাজ হত্যাকাণ্ড নিয়ে গাফিলতির অভিযোগ তুলে মঙ্গলবারই জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে চিঠি দিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকী মূল অভিযুক্তদের যথাযথ শাস্তির দাবি চেয়ে দলের তরফে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করতে চাওয়া হয়েছিল। শুক্রবার দুপুর ১২টায় তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে সময় দিল মানবাধিকার কমিশনের চেয়্যারম্যান। জানা গেছে, তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে কমিশনের চেয়্যারম্যানের সঙ্গে দেখা করবেন সাংসদ দোলা সেন, তৃণমূল নেতা সাকেত গোখলে ও ললিতেশ ত্রিপাঠি।


আরও পড়ুন:বিজেপির মুষল পর্বে নয়া অধ্যায়, সুকান্তর মহামিছিল এড়ালেন পুরুলিয়ার হাফ-ডজন বিধায়ক


রবিবার প্রয়াগরাজে নৃশংস হত্যার ঘটনায় মৃতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যায় তৃণমূল কংগ্রেসের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং কমিটি। মৃতদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন কমিটির সদস্যরা। সেখান থেকেই দোষীদের শাস্তির দাবিতে সরব হন তাঁরা। তারপর মঙ্গলবার মানবাধিকার কমিশনে চিঠি দেয় তৃণমূল কংগ্রেস। চিঠিতে প্রয়াগরাজে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে পুলিশে এফআইআরে চরম গাফিলতির বিষয়টি উঠে এসেছে। তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে পরিবারের সদস্য সুনীল যাদব যে সমস্ত অভিযোগ করেছেন, তার অধিকাংশ FIR থেকে বাদ দিয়েছে পুলিশ বলে অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেসের। মৃতের পরিবারের দাবি সুনীলের স্ত্রী ও বোনকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু FIR-এ ধর্ষণের বিষয়টি উল্লেখ নেই। নিহত পরিবারের অভিযোগ, বিষয়টি বারবার উল্লেখ করলেও পুলিশ তা FIR-এ রাখেনি। আর এই নিয়ে যোগী রাজ্যের পুলিশের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। কেন ধর্ষণের কথা উল্লেখ নেই তা নিয়ে পুলিশের গাফিলতির অভিযোগ তুলেছে।

প্রসঙ্গত, প্রয়াগরাজে একই পরিবারের পাঁচজনকে খুনের পর বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে৷ মর্মান্তিক ওই ঘটনায় মৃত্যু হয় দু’বছরের এক শিশুরও৷ এরপরই যোগীরাজ্যের নৃশংস হত্যার ঘটনায় সরগরম হয়ে ওঠে রাজনীতি।

Previous articleঅনিল-কন্যা অজন্তার দলত্যাগ: CPM-কে “মৌলবাদী” তকমা ক্ষিতি-কন্যা বসুন্ধরার