তেলেঙ্গানার ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে রাহুলের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনও রকম রাজনৈতিক কার্যকলাপকে অনুমতি দেওয়া হবে না। এমনটাই জানিয়ে কংগ্রেস(Congress) সাংসদ রাহুল গান্ধীকে(Rahul Gandhi) ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে(Osmania University) প্রবেশের অনুমতি দিল না তেলেঙ্গানার(Telengana) ওই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে কর্তৃপক্ষের এহেন সিদ্ধান্তে রীতিমতো ক্ষুব্ধ কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী। তিনি স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছেন আগামী ৬ ও ৭ মে তেলেঙ্গানা সফরে যাবেন তিনি। এবং যেভাবেই হোক পড়ুয়াদের সঙ্গে তিনি দেখা করবেন।

জানা গিয়েছে, রাহুল গান্ধীর তেলেঙ্গানা সফরে পাঁচ লক্ষ সমর্থকসহ বিশাল পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে রাহুলের অনুষ্ঠানের অনুমতি নিয়ে এখনও আয়োজকদের কিছুই জানানো হয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তরফে। কংগ্রেসের (Congress) তরফে বলা হয়েছে, ২৩ এপ্রিল এই অনুষ্ঠানের জন্য অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। সঙ্গে এটাও জানান হয়েছিল, এই অনুষ্ঠান একদমই অরাজনৈতিক হবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালের পর থেকে প্রায় প্রতি বছরই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক্সিকিউটিভ কাউন্সিল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গোটা ঘটনায় টিআরএস সরকারের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে তেলেঙ্গানা কংগ্রেস।

আরও পড়ুন:যোগীরাজ্যে গ্যাংস্টারের বাড়িতে তল্লাশির সময় মেয়ের মৃত্যু, পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ

এপ্রসঙ্গে কংগ্রেস সাংসদ রেভান্থ রেড্ডি এপ্রসঙ্গে বলেন, “রাহুল গান্ধীকে নিয়ে কেসিআর কোম্পানি এত ভয় পাচ্ছে কেন?” কংগ্রেসের মুখপাত্র জানিয়েছেন, “এটা অত্যন্ত লজ্জাজনক ঘটনা। কেসিআর কোম্পানির মনে রাখা উচিত পৃথক তেলেঙ্গানা রাজ্য তৈরি করতে অগ্রণী ভূমিকা ছিল সোনিয়া গান্ধীর। আজ কেসিআর পরিবার যে ক্ষমতা ভোগ করছে তা সোনিয়ার দান।”




Previous articleবিমান বিভ্রাটের ঘটনায় এবার তদন্তে নামল ডিজিসিএ