পাঁচ ধর্ষণকাণ্ডে রাজ্য পুলিশেই আস্থা হাইকোর্টের

পাঁচ ধর্ষণকাণ্ডে রাজ্য পুলিশেই আস্থা রাখল কলকাতা হাইকোর্ট। সোমবার পিংলা, শান্তিনিকেতন,ময়নাগুড়ি-সহ পাঁচটি ধর্ষণ মামলা নিয়ে শুনানি দেয়  কলকাতা হাইকোর্ট। প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে রাজ্য সরকারের তরফে এদিন পাঁচ তদন্তের গতিপ্রকৃতির রিপোর্ট পেশ করা হয় । শুনানির শেষ বিচারপতি জানিয়ে দেন রাজ্য পুলিশই এই ঘটনাগুলির তদন্ত করুক।  এবং পরবর্তী শুনানি আগামী ৪ মে ধার্য করা হয়।  ধর্ষণ মামলায় রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশন এবং মহিলা কমিশনকে যুক্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


আরও পড়ুন:Arun Lal: লাল গোলাপের মালা বদল করে কেক কেটে রেজিস্ট্রি সারলেন অরুণ লাল ও বুলবুল সাহা, রইল ছবি


নামখানার তদন্ত রিপোর্ট সম্পর্কে এজি জানান, দময়ন্তী সেন আদালতের নির্দেশে এই তদন্তের দায়িত্ব নিয়েছেন। ফরেনসিক রিপোর্ট আসতে সময় লাগছে। তাই দেরি হচ্ছে। ক্ষতিপূরণের বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে। শান্তিনিকেতনের আদিবাসী ধর্ষণের রিপোর্ট সম্পর্কে এজি জানান, ১৬৪ ধারা অনুযায়ী গোপন জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। ঘটনার পুনর্নির্মাণ করা হয়েছে। কেস ডায়রিতে তদন্তের সমস্ত রিপোর্ট উল্লেখ রয়েছে। পিংলার ধর্ষণ নিয়ে রিপোর্ট সম্পর্কে এজির বক্তব্য প্রসঙ্গে ডিভিশন বেঞ্চ বলে, আপনি তো সব রিপোর্টেই একই কথা বলছেন। সব নির্যাতিতার ক্ষেত্রেই কী ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে?  জবাবে এজি জানান, জেলা লিগ্যাল এইড অথোরিটি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করে অতি দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবে।


প্রসঙ্গত, পাঁচ ধর্ষণকাণ্ডে রাজ্য পুলিশের তদন্তে কোনও গাফিলতি নজরে আসছে না বলে আগেই জানিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ জনিয়েছিল,  সিবিআই তদন্তের কোনও প্রয়োজন নেই। বরং তাঁরা তদন্তের গতিপ্রকৃতির উপর নজর রাখবেন। ময়নাগুড়ি, নেত্রা, শান্তিনিকেতন, নামখানা ও পিংলা- রাজ্যের পাঁচ ধর্ষণকাণ্ডের তদন্তের রিপোর্ট আজ হাইকোর্টে পেশ করে রাজ্য পুলিশ।

Previous article“চরিত্রহীন-লম্পট”, ফের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র নিয়ে বিস্ফোরক স্ত্রী সুজাতা