সম্পত্তির লোভে দাদাকে খুন! ধৃত ভাই, খোঁজ ভগ্নিপতির  

সম্পত্তির(Property) লোভে দাদাকে সুপারিকিলার(Supari killer) দিয়ে খুন করালেন ভাই।ঘটনাটি ঘটেছে শ্রীরামপুরের(Serampore) রাজ্যধরপুরের দাসপাড়ায়।এই এলাকার বাসিন্দা গৌতম দাস(৫৮)। তাঁরা পাঁচ ভাই এক বোন। এক ভাইয়ের বছর দুয়েক আগে মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে এক ভাই উজ্জ্বল একমাত্র বিবাহিত। তিনি আলাদা বাড়িতে থাকেন। বাকি ভাই বোনেরা থাকেন একসঙ্গে থাকেন। জানা গিয়েছে, দিল্লি রোডের পাশে বহু টাকার জমি ও সম্পত্তি রয়েছে তাঁদের। সম্পত্তির লোভে দাদাকে খুনের ছক করে ভাই উজ্জ্বল। গত বৃহস্পতিবার দাসপাড়ারই একটি পুকুর থেকে গৌতম দাসের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। স্থানীয়রা দেহ পুকুরে ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেন। পিয়ারপুর ফাঁড়ির পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতালে পাঠায় ময়নাতদন্তে।

মৃতের ছোটো ভাই উৎপল অভিযোগ দায়ের করেন শ্রীরামপুর থানায়। তদন্তে নামে পুলিশ। প্রথমে কৃষ্ণ সরকার নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশ। মাঠপাড়ার বছর তিরিশে কৃষ্ণ পুলিশের নজরে ছিল তার অসামাজিক কাজের জন্য। কৃষ্ণকে জেরা করে উজ্জ্বলকে আটক করে। দুজনকে জেরা করে খুন ও খুনের কারণ জানতে পারে পুলিশ। সম্পত্তির লোভে কৃষ্ণকে খুনের ভার দেয় উজ্জ্বল। জানা গিয়েছে, ২৫  হাজার টাকায় রফা হয়। অগ্রিম পাঁচ হাজার টাকা দেয় কৃষ্ণকে।

আরও পড়ুন:ভারতে পুরুষদের তুলনায় মহিলারা অল্প বয়সেই যৌনতার অভিজ্ঞতা প্রাপ্ত হন

পুলিশ সূত্রে খবর, পুকুরের ধারে গৌতমকে খুন করে ফেলে রাখা হয়। পুলিশ জানতে পেরেছে এর আগে দুটো জমি উজ্জ্বল তাঁর ভাইদের না জানিয়ে বিক্রি করে দেয়। তা নিয়ে অশান্তি ছিল পরিবারে। ঘটনায় ভগ্নিপতি বিজয় মণ্ডলও জড়িত আছে বলে সন্দেহ। তাঁর খোঁজে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে তল্লাশি। ধৃতদের আজ শ্রীরামপুর আদালতে পেশ করা হবে। ধৃতদের নিজেদের হেফাজতে নিয়ে তদন্ত চালানোর আবেদন জানাবে পুলিশ।




Previous articleশনি -রবি গরম , সোমবার থেকে দক্ষিণবঙ্গে ফের বৃষ্টির পূর্বাভাস