বিয়েবাড়ির ভোজে সংঘর্ষে উস্কানির অভিযোগ, গ্রেফতার যদুপতি পাল

বাগডিহা গ্রামের কৃষ্ণা চৌধুরীর বিয়েতে সপরিবারে আমন্ত্রিত ছিলেন যুবক রবি চৌধুরী। বিয়ের শেষ ব্যাচে পরিবেশনকারী কেটারিং এর কর্মীরা খাবার দিতে অস্বীকার  করায় বচসা বাধে। তারপর সেই থেকে শুরু হয় হাতাহাতি ঘটনাচক্রে ওই সংঘর্ষে পড়ে আহত হন রবি।

বিয়েবাড়ির (Marriage Ceremony) খাওয়া-দাওয়াকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনায় গ্রেফতার করা হল একজনকে। পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃত তৃণমূল নেতা যদুপতি পাল(Jadupati Pal)  পশ্চিম বর্ধমান জেলা পরিষদের প্রাক্তন কর্মাধ্যক্ষ।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার আসানসোলের জামুড়িয়া থানার বাগডিহা গ্রামে বিয়েবাড়িতে খাবার দেওয়াকে কেন্দ্র করে বচসা, হাতাহাতি হয়। বাগডিহা গ্রামের কৃষ্ণা চৌধুরীর বিয়েতে সপরিবারে আমন্ত্রিত ছিলেন যুবক রবি চৌধুরী। বিয়ের শেষ ব্যাচে পরিবেশনকারী কেটারিং এর কর্মীরা খাবার দিতে অস্বীকার  করায় বচসা বাধে। তারপর সেই থেকে শুরু হয় হাতাহাতি ঘটনাচক্রে ওই সংঘর্ষে পড়ে আহত হন রবি। প্রাথমিক চিকিৎসায় সুস্থ হলেও পরের দিন তাঁর মৃত্যু হয়। জখম হন দু’জন ।এরপরেই অভিযোগ দায়ের করেন রবির পরিবারের লোকজন। সেই ঘটনায় যদুপতির বিরুদ্ধে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।  শনিবার রাতে জামুড়িয়ার সিদ্ধপুরে তাঁর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।ধৃত ব্যক্তিকে আসানসোল আদালতে পাঠিয়েছে জামুড়িয়া থানার পুলিশ। এই ঘটনা প্রসঙ্গে রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটক(Malay Ghatak) বলেন, ‘‘আইন আইনের পথে চলবে,যদি কেউ অন্যায় করেন, তিনি ছাড়া পাবেন না। তা সে পার্টির যে পদেই থাকুক না কেন।’’



Previous articleতৃণমূল থেকে আসা নেতারা বিজেপিতে গুরুত্বহীন: নাড্ডার সঙ্গে বৈঠকের আগে বিস্ফোরক অর্জুন