রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দিল্লি আসছেন লালুপ্রসাদ !

আগামী ১৫ জুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য যিনি পাটনা থেকে দিল্লি আসতে চলেছেন, তিনি লালুপ্রসাদ যাদবের ‘সমনামী’।ইনি আরজেডি চিফ লালুপ্রসাদ যাদব নন।

দিল্লি আসছেন লালুপ্রসাদ যাদব(Lalu prasad yadav)। ১৫ জুনের ফ্লাইটে পাটনা থেকে সরাসরি দিল্লি নামবেন তিনি। পার্লামেন্টে এসে জমা দেবেন নমিনেশনের যাবতীয় নথিপত্র। আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তিনি। নিশ্চয়ই ভাবছেন আরজেডি সুপ্রিমো ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালুপ্রসাদ যাদব কি এবার রাষ্ট্রপতির আসনে বসার ‘স্বপ্ন’ দেখছেন? তবে কি কুখ্যাত গো-খাদ্য কেলেঙ্কারী মামলায় জামিন পেলেন তিনি? তার উপর তিনি যথেষ্ট অসুস্থ। আসলে বাস্তবে তা নয়।
আগামী ১৫ জুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য যিনি পাটনা থেকে দিল্লি আসতে চলেছেন, তিনি লালুপ্রসাদ যাদবের ‘সমনামী’।ইনি আরজেডি চিফ লালুপ্রসাদ যাদব নন। বিহারের সারণ জেলার বাসিন্দা লালুপ্রসাদ গো-বলয়ে রাজনৈতিক নির্বাচনে পরিচিত মুখ। আসলে তার একটিই নেশা বিভিন্ন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা। এর আগেও ২০১৭ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে তিনি রামনাথ কোবিন্দ( ramnath kobind) ও মীরা কুমারের( mira kumar) পাশাপাশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য নমিনেশন(nomination) জমা করেছিলেন, কিন্তু টেকনিক্যাল কারণে তাঁর নমিনেশন বাতিল হয়ে গিয়েছিল। তবে এবার তিনি আগের চেয়ে অনেক বেশি সতর্ক, ওয়াকিবহাল ও আত্মবিশ্বাসী।

আরও পড়ুন- বাড়ল গরমের ছুটি, কবে খুলবে স্কুল জেনে নিন?
পেশায় কৃষক ৪২ বছরের লালুপ্রসাদ যাদব সারণের মরহৌরা বিধানসভার অধীন যাদব সম্প্রদায় অধ্যুষিত রহিমপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি বিবাহিত ও তাঁর সমনামী বিখ্যাত নেতা লালুজির মতই সাত সন সন্তানের পিতা। বড় মেয়ের সদ্য বিয়ে দিয়েছেন। সংসারের যাবতীয় দায়দায়িত্ব সামলানোর পাশে বিহারের এই ভূমিপুত্রের একটাই শখ-লোকসভা হোক বা বিধানসভা, রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হোক বা অন্য কোনও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা। যে যাই বলুক না কেন, তিনি নির্বাচনে লড়বেনই।
প্রায় এক দশক ধরে তিনি নির্বাচনে লড়ছেন, হারছেন, আবার লড়ছেন, আবার হারছেন কিন্তু হাল ছেড়ে দেননি। আজও তিনি গর্ব করে বলেন, ‘২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও লালু-জায়া রাবড়ি দেবীর হারের জন্য দায়ী তিনিই। অভিযোগ করেছিলেন তাঁর ‘গুরু’ আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদব স্বয়ং৷ সারণ থেকে নির্বাচনে দাঁড়িয়ে বহু মানুষ তাঁর নাম দেখে, রাবড়ির বদলে তাঁকেই ভোট দিয়েছিল। তরুণ লালুপ্রসাদ ১০ হাজারের কম ভোট পেয়েছিলেন ও তাঁর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। সেই নির্বাচনে বিজেপির রাজীবপ্রতাপ রুডি প্রায় ৫০ হাজারেরও বেশি ভোটে জিতে লোকসভায় গিয়েছিলেন।

আসলে তিনি মনে করেন, জাতীয় স্তরের নির্বাচনে বিহারের অবদান ও ভূমিকা থাকা উচিত। তিনি নিজেই বিহারের ‘ভূমিপুত্র’ আর খোদ দেশের সংবিধান তাঁকে এই নির্বাচনে লড়াই করার অধিকার দিয়েছে।তিনি জানেন যে তাঁর হার অনিবার্য। তবু ভাগ্যের উদ্দেশ্যে আরও একবার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে আগামী ১৫ জুন পাটনা থেকে দিল্লির বিমানে চেপে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আসছেন আরজেডি সুপ্রিমোর সমনামী লালুপ্রসাদ যাদব।

Previous articleBengal Cricket: রঞ্জির সেমিফাইনালে মঙ্গলবার বাংলার প্রতিপক্ষ মধ‍্যপ্রদেশ, চিন্তায় মনোজের চোট