লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে খরচ, ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেন প্রকল্প নিয়ে ধোঁয়াশা

২০২৩ সালে প্রকল্পটি শেষ হওয়ার কথা থাকলেও , ২০২৮ সালের আগে তা সম্পূর্ণ হওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই।

ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেন প্রকল্প আদৌ কবে দিনের আলো দেখবে তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। পরিস্থিতি এমনই যে, প্রধানমন্ত্রীর(Narendra Modi) স্বপ্নের এই প্রকল্প ৫ বছর পর্যন্ত পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। এই প্রকল্প পিছিয়ে গেলে বিপুল হারে বাড়তে পারে এই প্রকল্পের খরচ। জানা গিয়েছে, ২০২৩ সালে প্রকল্পটি শেষ হওয়ার কথা থাকলেও , ২০২৮ সালের আগে তা সম্পূর্ণ হওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই।

যদিও মুম্বাই-আহমেদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্পের সব ধরনের অনুমোদন বেশ কয়েক বছর আগেই দেওয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্রের উপ-মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ (Devendra Fadanavis) জানিয়েছেন যে, রাজ্য সরকার মুম্বই-আহমেদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্প সংক্রান্ত সমস্ত অনুমোদন দিয়েছে।

কিন্তু রূপায়ণে বিলম্বের কারণে দেশের প্রথম বুলেট ট্রেন প্রকল্পের খরচ ১.৬ লক্ষ কোটি টাকা পেরিয়ে যাবে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহালমহল। আহমেদাবাদ থেকে মুম্বই হাই-স্পিড ট্রেন প্রকল্পে দেরি হওয়ার প্রধান কারণ জমি অধিগ্রহণে সমস‌্যা ও মাঝে দু’বছর কোভিড-এর জন‌্য কাজ বন্ধ থাকা। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে মুম্বই-আমেদাবাদ ৫০৮ কিমি দীর্ঘ পথে বুলেট ট্রেন চালানোর উদ্যোগ শুরু হয়েছিল। সেইসময় প্রকল্পের জন‌্য খরচ ধরা হয়েছিল ১.০৮ লক্ষ কোটি টাকা। কিন্তু, কাজে বিলম্বের কারণে সেই খরচ অনেকটাই বেড়ে যাবে। প্রাথমিক হিসাবে জিএসটি-ছাড়া ১.৬০ লক্ষ কোটি টাকার বেশি ব্যয় হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

জাপানের সাহায্যে হওয়া এই প্রকল্পটি সম্পন্ন হওয়ার কথা সম্পূর্ণ জাপানি প্রযুক্তিতে এবং জাপানি সংস্থাগুলির মাধ্যমে। এই প্রকল্পে মাটির তলা দিয়ে যে ২১ কিলোমিটার লম্বা লাইন হওয়ার কথা। সেই ২১ কিলোমিটার লাইন তৈরিতে জাপানি সংস্থাগুলি নাকি আগ্রহ দেখাচ্ছে না। তাছাড়া করোনার জন্য গোটা বিশ্বের অর্থনীতিই ধাক্কা খেয়েছে। যে কারণে বেড়েছে জিনিসপত্রের দাম। এই প্রকল্পের খরচ বাড়ার ক্ষেত্রে সেটিও বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।এর পাশাপাশি অভিযোগ, মহারাষ্ট্রের আগের মহা বিকাশ আঘাদি (Maha Vikas Aghadai, MVA) সরকার এই প্রকল্পটি ত্বরান্বিত করার জন্য কোনও পদক্ষেপ  নেয়নি।

 

 

 

Previous articleCorona Update: বাড়ল অ্যাকটিভ কেস, চিন্তা বাড়াচ্ছে দেশের করোনা পরিসংখ্যান