লক্ষ্য কি ভারতের উপর নজরদারি! শ্রীলঙ্কায় চিনা জাহাজ বাড়াচ্ছে উদ্বেগ

চিনের(China) একটি জাহাজ(Ship) সম্প্রতি রওনা দিয়েছে শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটা বন্দরের উদ্দেশে। এই জাহাজকে ঘিরেই শুরু হয়েছে জল্পনা। অনুমান করা হচ্ছে ভারতের উপর নজরদারির উদ্দেশ্যেই শ্রীলঙ্কা(SriLanka) বন্দরে ঘাঁটি গাড়ছে এই জাহাজ। বিষয়টির নজরে আসতেই ভারতের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, গোটা বিষয়টির উপর কড়া নজর রাখছে নয়াদিল্লি(New delhi)।

সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর, আগামী ১১ অগাস্ট শ্রীলঙ্কার বন্দরে ভিড়তে পারে চিনের ইউয়ান ওয়াং ৫ জাহাজটি। এরপরই বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি জানান, “দেশের নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক স্বার্থে প্রভাব ফেলতে পারে যে বিষয়গুলি সেগুলির দিকে সব সময় নজর রেখে চলে সরকার।” অর্থাৎ বিদেশমন্ত্রকের বার্তা অনুযায়ী শ্রীলঙ্কার বন্দরে চিনের জাহাজের উপস্থিতি একেবারেই ভালো চোখে দেখছে না ভারত। যদিও শ্রীলঙ্কার তরফে জানানো হয়েছে, “শুধুমাত্র জ্বালানি দিতে আসবে চিনা জাহাজ। এর পিছনে অন্য কোনও উদ্দেশ্যে নেই। আমাদের প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমসিংহে জানিয়েছেন, কূটনৈতিক ভাবে সকল দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। দুই দেশের মধ্যে যেন অস্থিরতা তৈরি না হয়, সেদিকে নজর রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।” যদিও এবিষয়ে একেবারেই নীরব চিন। জানা গিয়েছে, এক সপ্তাহ শ্রীলঙ্কার বন্দরে থাকবে এই জাহাজ।

এদিকে একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, প্রায় ৭৫০ কিমি এলাকায় বায়বীয় নজরদারি চালাবার ক্ষমতা রয়েছে জাহাজটির। সুতরাং চাইলেই ওই জাহাজ ভারতীয় সীমান্তে থাকা পরমাণু গবেষণা কেন্দ্র এবং কালাপাক্কাম ও কুডানকুলাম অঞ্চলের দিকে নজরদারি চালাতে পারবে। পাশাপাশি কেরল, তামিলনাড়ু ও অন্ধ্রপ্রদেশের বন্দরগুলি সম্পর্কেও তথ্য সংগ্রহ করে নিতে পারবে তারা। যার জেরে স্বাভাবিকভাবেই এই জাহাজকে ঘিরে আশঙ্কা বাড়ছে ভারতের।


Previous articleসকাল থেকে কলকাতায় মেঘলা আকাশ সঙ্গে গুমোট গরম