প্রতিবাদ অস্ত্রেই সংসদে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে লড়াই: দিল্লিতে দলীয় সাংসদদের বার্তা মমতার

চার দিনের সফরে দিল্লি গিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এই সফরে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পাশাপাশি রয়েছে একাধিক কর্মসূচি। তবে এই সফরের শুরুটা তিনি করলেন দলীয় সাংসদদের সঙ্গে সাক্ষাতের সঙ্গে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দিল্লিতে সুখেন্দু শেখরের বাসভবনে দলীয় সাংসদদের সঙ্গে বৈঠক করলেন তৃণমূল নেত্রী। আর এই বৈঠকে সাংসদদের বার্তা দিলেন সংসদে তৃণমূল সাংসদদের অবস্থান কী হবে তা নিয়ে। স্পষ্টভাবে বুঝিয়ে দিলেই বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদই হবে সংসদে তৃণমূলের লড়াইয়ের মূল অস্ত্র। পাশাপাশি ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনকে নজরে রেখে দলীয় সাংসদদের তৃণমূলের রোডম্যাপ বাতলে দিলেন দলনেত্রী।

এদিন দিল্লিতে সুখেন্দু শেখরের বাসভবনে দলনেত্রীর ডাকা বৈঠকে দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সহ উপস্থিত ছিলেন লোকসভা ও রাজ্যসভায় তৃণমূলের সকল সাংসদরা। এই চা চক্রে সংসদে কেন্দ্রের ওপর চাপ বাড়ানোর স্ট্রাটেজি বাতলে দেন তৃণমূল নেত্রী। তাঁর পরামর্শ, কেন্দ্রের ‘জনবিরোধী’ ইস্যুগুলিকে সামনে রেখে প্রতিবাদের রাস্তায় হাঁটতে হবে। সংসদের ভিতরে-বাইরে ক্রমাগত প্রতিবাদই একমাত্র শক্তিশালী অস্ত্র হবে দলের। বৈঠক শেষে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেন, বাদল অধিবেশনের সংসদে তৃণমূল কোন পথে লড়বে তার দিক নির্দেশিকা দিয়েছেন দলনেত্রী। দেশজুড়ে যে ভয়াবহ পরিস্থিতি, তার জন্য দায়ী কেন্দ্রের একাধিক জনবিরোধী নীতি। প্রতিটি ইস্যুকে সমান গুরুত্ব দিয়ে আন্দোলন জারি রাখার বার্তা দিয়েছেন এই বৈঠকে। এর পাশাপাশি সাংসদ সুস্মিতা দেব জানান, সংসদে কেন্দ্রকে চাপে রাখার রণকৌশল স্থির করে দিয়েছেন দলনেত্রী। তাছাড়া যেভাবে প্রতিদিন তৃণমূলের কর্মসূচি চলছে, তা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথাও বলেছেন। সংসদীয় কর্মসূচির পাশাপাশি ২৪-এর লোকসভা নির্বাচনকে নজরে রেখে দলের আগামী রণকৌশল কী হবে সে নিয়েও বার্তা দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, আগামী রবিবার নীতি আয়োগের বৈঠকে যোগ দিতেই মূলত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর এই দিল্লি সফর। তবে এবার রাজধানীতে একাধিক কর্মসূচী রয়েছে তাঁর। আগামিকাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাতের পাশাপাশি রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন তিনি। তাঁকে একটি শাড়ি উপহার দেওয়ার কথা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর। এরপর শনিবার উপ-রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের দিনও দিল্লিতে থাকবেন মমতা। ওইদিন ৪ রাজ্যের অকংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কথা রয়েছে তাঁর।

আরও পড়ুন- রাম-বামের বিক্ষোভে জেরবার, অব্যহতি চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি রবীন্দ্রভারতীর উপাচার্যের

 

Previous articleEmami EastBengal: সকালে শহরে পা রেখেই দুপুরে দল নিয়ে অনুশীলনে কনস্ট‍্যানটাইন