এরপর লোকের কাছে কী জবাব দেব? কেন একথা বললেন সৌগত

দমদমের তৃণমূল সাংসদের মত, গোটা ভারতেই এমন দুর্নীতি কম হয়েছে। বিশেষ করে টাকার পাহাড়ের দৃশ্য তৃণমূলের কাছে ‘লজ্জার ও বিড়ম্বনার’। সৌগত মনে করিয়ে দেন, লালু দুর্নীতির জন্য জেলে গেলেও এত নোট বেরহয়নি

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায় আপাতত শ্রীঘরে। তাঁকে বহিষ্কার করেছে দল, মন্ত্রিত্বও খুইয়েছেন তিনি। সময় এগোলেও তৃণমূলের বিড়ম্বনা কাটছে না।এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার ফের দলের প্রাক্তন মহাসচিবকে নিশানা করেছেন বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তবে, পার্থর কুর্কীতির জন্য দলের সকলকে ‘চোর’ বলে অপবাদ দেওয়াও ঠিক নয় বলে দাবি তাঁর।

দমদমের তৃণমূল সাংসদের মত, গোটা ভারতেই এমন দুর্নীতি কম হয়েছে। বিশেষ করে টাকার পাহাড়ের দৃশ্য তৃণমূলের কাছে ‘লজ্জার ও বিড়ম্বনার’। সৌগত মনে করিয়ে দেন, লালু দুর্নীতির জন্য জেলে গেলেও এত নোট বেরহয়নি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুখরামের কাছ থেকে দুই-চার কোটি নোট উদ্ধার হয়েছিল। কিন্তু এত কোটি কোটি টাকা উদ্ধারের ছবি কোথাও দেখা যায়নি। টাকার ছবি না দেখলে তো বিশ্বাসই করতাম না। এই যে টাকার পাহাড় দেখা গিয়েছে এরপর লোকের কাছে কী জবাব দেব? এই বিড়ম্বনা, এই লজ্জা তো আমাদের আছে।’

এসএসসি দুর্নীতি নিয়ে সরব হয়েছেন খড়দহের তৃণমূল বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ও। খড়দহ বিধানসভার বিলকান্দায় দলের একটি অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “বিধানসভায় আমি বলেছি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন কোর্ট থেকে পরিষ্কার হয়ে আসতে হবে। নাহলে দল কাউকে স্বীকার করবে না। চোর প্রমাণ হলে দল তাকে সহ্য করবে না।”

Previous articleলকেটের পর এবার সুকান্ত ! শর্তসাপেক্ষে বিজেপির ৬ জনকে গ্রামে প্রবেশের অনুমতি স্থানীয়দের