ধর্মান্তকরণ রুখতে কড়া সুপ্রিম কোর্ট! ৪ সপ্তাহের মধ্যে কেন্দ্রকে অবস্থান জানানোর নির্দেশ

এখনও পর্যন্ত কেন্দ্র বা রাজ্য প্রশাসনের তরফে এর বিরুদ্ধে কোনও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না। আইনজীবী অশ্বিনীকুমার উপাধ্যায়ের (Aswini Kumar Upadhyay) আর্জির ভিত্তিতে শীর্ষ আদালতে এই মামলার শুনানি হয় শুক্রবার।

Supreme Court

ভয় দেখিয়ে, উপহার ও অর্থের লোভ দেখিয়ে, প্রতারণা করে ধর্মান্তরিত (Converted) করা দেশে ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। আর তা রুখতে ভারতীয় দণ্ডবিধিতে (Indian Penal Code) কড়া আইন আনা হবে। জোর করে, ভুল বুঝিয়ে ধর্মান্তকরণ রুখতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক ও কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রককে নোটিস দিল দেশের শীর্ষ আদালত (Supreme Court of India)। সম্প্রতি বিচারপতি এম আর শাহের (Justice M R Shah) নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ পর্যবেক্ষণে জানায় ধর্মান্তকরণ রুখতে ভারতীয় দন্ডবিধিতে কড়া আইন আনা হচ্ছে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারকে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করতে চার সপ্তাহ সময় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। আগামী ১৪ নভেম্বর মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

অন্যদিকে, সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া আবেদনে আরও বলা হয়েছে, যেমনভাবেই হোক ধর্মান্তকরণের হাত থেকে মুক্ত নয় কোনও একটি জেলাও। এর ফলে বৃহত্তরস্বার্থে দেশের আমজনতাকে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হচ্ছে। প্রতি সপ্তাহেই দেশে বিভিন্ন অংশ থেকে এই ধরনের ঘটনা সামনে আসছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেন্দ্র বা রাজ্য প্রশাসনের তরফে এর বিরুদ্ধে কোনও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না। আইনজীবী অশ্বিনীকুমার উপাধ্যায়ের (Aswini Kumar Upadhyay) আর্জির ভিত্তিতে শীর্ষ আদালতে এই মামলার শুনানি হয় শুক্রবার।

তবে ধর্মান্তর বিরোধী আইন চালু করা নিয়ে ইতিমধ্যে সব মহলেই শুরু হয়েছে চর্চা। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh) চালু হওয়া ধর্মান্তর বিরোধী আইনে দেশে প্রথম সাজা দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় এক হিন্দু নাবালিকাকে অপহরণ করে ধর্মান্তরিত করার অভিযোগ উঠেছিল ওই যুবকের বিরুদ্ধে। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে ধর্মান্তর বিরোধী আইন পাশ করা হয় উত্তরপ্রদেশে।

Previous articleকংগ্রেস সভাপতি হবেন না গান্ধী পরিবারের কেউ, রাহুলের মনের কথা জানালেন গেহলট