লক্ষ্মীপুজোয় শিশিরের জন্য ধুতি-পাঞ্জাবি নিয়ে শান্তিকুঞ্জে সুকান্ত, শুভেন্দুর বাবাকে নিয়ে ফের বিতর্ক

আজ, লক্ষ্মীপুজোয় রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কাঁথির বাড়িতে আমন্ত্রণ রক্ষা করতে যাচ্ছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। সুকান্তর ঘনিষ্ঠরা জানাচ্ছেন দুর্গাপুজোর বিজয়ার জন্য মিষ্টি যেমন নিয়ে যাচ্ছেন, ঠিক একইভাবে শান্তিকুঞ্জের সদস্যদের জন্য জন্য নতুন পোশাকও কিনেছেন তিনি। জানা গিয়েছে, শুভেন্দুর বাবা তথা বর্ষীয়ান সাংসদ শিশির অধিকারীর জন্য ধুতি-পাঞ্জাবি কিনেছেন সুকান্ত। মায়ের জন্য নিয়েছেন শাড়ি।

এর আগে বিভিন্ন সময়ে শুভেন্দুর বাড়িতে গিয়েছেন লকেট চট্টোপাধ্যায়, দিলীপ ঘোষরা। এবার সেই তালিকায় নাম তুলতে চলেছেন সুকান্ত মজুমদার। শান্তিকুঞ্জে প্রতিবছর ঘটা করে লক্ষ্মীপুজো হয়। সুকান্ত সাফ জানিয়েছেন, “অনেক দিনই শান্তিকুঞ্জে যাওয়ার ইচ্ছা ছিল। অবশেষে যাচ্ছি। সংসদে অনেক বার দেখা হয়েছে শিশিরবাবুর সঙ্গে। তাঁর আশীর্বাদ নেব। পরিবারের সকলের সঙ্গে আলাপ-পরিচয় হবে। এখানে রাজনীতি দেখার কিছু নেই। পুজোয় যোগ দিতে যাচ্ছি।”

শিশিরবাবুর জন্য ধুতি-পাঞ্জাবি নিয়ে শান্তিকুঞ্জে যাওয়ার বিষয়টি সুকান্ত রাজনীতি নয় বললেও শুভেন্দুর বাবা আর বিজেপির সম্পর্ক নিয়ে রাজনৈতিক আলোচনা অনেক দিনের। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে অমিত শাহের উপস্থিতিতে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন শুভেন্দু। তখন থেকেই জল্পনা, তাঁর সঙ্গে বিজেপিতে যোগ দেবেন বাবা শিশির এবং ভাই, তথা তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী। বিধানসভা ভোটের আগে তমলুকে অমিত শাহের সভায় শিশিরকে দেখাও গিয়েছিল। যদিও বিজেপিতে তিনি যোগ দেননি বলে দাবি করেন শিশির। অন্যদিকে তৃণমূলের তরফে অভিযোগ,মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রার্থী হিসেবে জিতলেও সাংসদ শিশির অধিকারীর সঙ্গে বিজেপির আঁতাত রয়েছে। সাংসদ পদ না ছেড়ে তিনি বিজেপির রাজনৈতিক সমাবেশে যোগ দিয়েছেন। এবার সুকান্তর ধুতি-পাঞ্জাবি নিয়ে শান্তিকুঞ্জে যাওয়ার খবরে শিশির অধিকারীকে নিয়ে ফের নতুন করে বিতর্ক তৈরি হতে চলেছে কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর রাতে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

Previous article‘শরীরের উপর অতিরিক্ত ধকল মনে হলে ক্রিকেটারদের আইপিএল খেলা উচিত নয়’ :কপিল দেব