UP: স্বামী, সৎ ছেলের লাগাতার ধ*র্ষণে স্বেচ্ছামৃ*ত্যু চাইলেন উত্তরপ্রদেশের গৃহবধূ

৩০ বছরের ওই মহিলা জানিয়েছেন, তিনি ন্যায়বিচারের প্রতি সমস্ত বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন। তাই ইউথেনেশিয়ার (Euthanasia) অনুমতি চাইছেন। তাঁর এমন চিঠিতে স্বাভাবিক ভাবেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

প্রতীকী ছবি

উত্তরপ্রদেশের (Uttarpradesh) বুকে নারী অসম্মানের আরও এক ঘটনা এবার প্রকাশ্যে। দিনের পর দিন স্বামী এবং সৎ ছেলে একনাগাড়ে ধ*র্ষণ করে চলেছে। সহ্য করতে না পেরে এবার স্বেচ্ছামৃ*ত্যুর আবেদন করলেন উত্তরপ্রদেশের (Uttarpradesh) এক গৃহবধূ (Housewife)। ৩০ বছরের ওই মহিলা জানিয়েছেন, তিনি ন্যায়বিচারের প্রতি সমস্ত বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন। তাই ইউথেনেশিয়ার (Euthanasia) অনুমতি চাইছেন। তাঁর এমন চিঠিতে স্বাভাবিক ভাবেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

যোগী রাজ্যে নারীরা কোনমতেই সুরক্ষিত নয়। বিজেপি শাসিত রাজ্যে দিনের পর দিন নারীকে অসম্মান এবং শারীরিক নির্যাতনের ঘটনা খবরের শিরোনামে এসেছে। এবার আদিত্যনাথ সরকার (Adityanath Government) শাসিত উত্তরপ্রদেশে ছেলে এবং স্বামীর হাতে দিনের পর দিন ধ*র্ষিতা কতগুলো গৃহকর্ত্রীকে।এমনই অভিযোগ জানিয়ে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর (Draupadi Murmu) কাছে স্বেচ্ছামৃ*ত্যুর কাতর আরজি জানালেন উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) এক গৃহবধূ। আইন ব্যবস্থার উপর তিনি সম্পূর্ণ আস্থা হারিয়েছেন বলে এক চিঠিতে উল্লেখ করেছেন তিনি। তিনি জানাচ্ছেন, তিন বছর আগে তাঁর ডিভোর্স হয়ে যায় প্রথম স্বামীর সঙ্গে। এরপর চণ্ডীগড়ের ৫৫ বছরের এক কৃষককে তিনি বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই ওই ব্যক্তির আগের পক্ষের ছেলে তাঁকে জোর করতে থাকেন অবৈধ সম্পর্ক স্থাপনের জন্য। নিয়মিত জোর করে ওই তরুণ তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কও স্থাপন করেন বলে অভিযোগ। কিছুদিনের মধ্যেই তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন।এরপর তাঁর গর্ভস্থ সন্তানকে নষ্ট করিয়ে দেওয়া হয় বলেই জানাচ্ছেন তিনি। পুলিসের কাছে অভিযোগ দায়ের করেও কোনও লাভ হয়নি। আর কোনও উপায় না দেখে নিজের জীবন শেষ করার অনুমতি চাইছেন তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতে প্রত্যেকেই উত্তরপ্রদেশ সরকারের (Uttarpradesh Government) সমালোচনায় মুখর হয়েছেন।

 

Previous articleবিদেশি অনুদান আইন লঙ্ঘন! রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনের FRCA লাইসেন্স বাতিল কেন্দ্রের