এবার খয়রাতি নিয়ে  হস্তক্ষেপ করবে সিএজি

তার প্রভাব অর্থনীতিতে কতটা পড়ছে  এবার থেকে তার বিশ্লেষণ করে দেখবে কন্ট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল।

খয়রাতি নিয়ে এবার হস্তক্ষেপ করতে চলেছে সিএজি।  ভোটের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির তরফে যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়  তার প্রভাব অর্থনীতিতে কতটা পড়ছে  এবার থেকে তার বিশ্লেষণ করে দেখবে কন্ট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল।
এমনকি এই বিষয়ে কতগুলি প্যারামিটারও তৈরি করছে সিএজি। যার মাধ্যমে  অর্থনীতির ওপর চাপ সৃষ্টি করা বিষয়গুলোকে  সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব হবে।জানা গিয়েছে, কয়েকদিন আগেই গিরিশচন্দ্র মুর্মুর নেতৃত্বাধীন সিএজির ২১ সদস্যের অডিট অ্যাডভাইজারি বোর্ডের বৈঠকে রাজ্যগুলির অর্থনৈতিক স্থায়িত্ব নিয়ে আলোচনা হয়।  করোনার পর থেকেই রাজস্ব থেকে আয় কমেছে রাজ্যগুলির। আগামী ৬ বছরে রাজ্যগুলির ঋণ মেটানোর বিষয়টি নিয়ে গুরুত্ব সহকারে আলোচনা হয় বৈঠকে।
অডিট বোর্ডের বক্তব্য, সমস্ত রাজ্যের অন্যতম সমস্যা  হল ঋণ পরিশোধ করা। আগে রাজ্যগুলি যে ঋণ গ্রহণ করেছে, সেগুলি পরিশোধের বোঝা এতটাই বেশি যে, তা করতে গেলে রাজ্যগুলির বাজেটের অর্ধেকই চলে যাবে। সেটা স্থায়ী সমাধান নয়।” খয়রাতিতে টিভি, ল্যাপটপ, গ্রাইন্ডার, মিক্সার দেওয়া নিয়ে গুরুত্ব দিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে  জানা গিয়েছে।
সিএজির এই বক্তব্য প্রকাশ্যে আসতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিভিন্ন ঘোষণার সমালোচনা করে প্রশ্ন তুলেছেন কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম। টুইটারে তিনি লিখেছেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, করদাতাদের টাকা খয়রাতির খাতে খরচ হয়। ভাল বলেছেন স্যার। তবে তাঁর এটা যোগ করা উচিত, গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিনামূল্যে দুটি এলপিজি সিলিন্ডার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি কি খয়রাতি নয় ?।” পরের টুইটে তিনি লিখেছেন, “তাঁর আরও যোগ করা উচিত, ৫১৭টি সংস্থার ৫ লক্ষ ৩২ হাজার কোটি টাকার ঋণ মুছে ফেলা খয়রাতি নয়। তাঁর কাছে আরও অনেক উদাহরণ রয়েছে সেগুলি তুলে ধরতে পারতেন।” প্রসঙ্গত,কিছুদিনের মধ্যেই হতে চলেছে গুজরাটের নির্বাচন। প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা প্রকল্পে প্রতিটি পরিবারকে বিনামূল্যে দুটি করে সিলিন্ডার দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে। 

Previous articleUP: স্বামী, সৎ ছেলের লাগাতার ধ*র্ষণে স্বেচ্ছামৃ*ত্যু চাইলেন উত্তরপ্রদেশের গৃহবধূ