সবজির দাম নিয়ে ক্ষুব্ধ মমতা, ডিম- মুরগির মাংসের দামও বেঁধে দেওয়ার নির্দেশ

কোল্ড স্টোরেজ থেকে আলু বের করুন। বাঙালি আলুভাতে খেলে খুশি। ইউপির আলু খাওয়ার দরকার কী, এখানে চাল খান, আলুও খান। হজম ভাল হবে।”

শীতের মরশুমে কেন সবজির বাজার আগুন? সোমবার  নবান্নে টাস্ক ফোর্স, কৃষি বিপণন দফতরের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে সরাসরি জানতে চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।বাজারে চড়া দামে শাক-সবজি বিক্রি হচ্ছে সেই দামও  নিয়ন্ত্রণে আনার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।এরই পাশাপাশি ডিম- মুরগির মাংসের দামও বেঁধে দিতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।এদিন বৈঠকের শুরুতেই মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত মন্ত্রী-প্রশাসনিক কর্তাদের আলুর দাম নিয়ে ক্ষোভের কথা বলেন। টাস্ক ফোর্সের কাছে তিনি বলেন, আলু কেন বাজারে বেশি দাম বিক্রি হচ্ছে! দরকারে সুফল বাংলায় বিক্রি করুন। আজ নবান্নে মিটিং আছে বলে ১৫ টাকা হয়ে গিয়েছে। তার আগে মনে হয় ২৫ টাকা ছিল। কোল্ড স্টোরেজ থেকে আলু বের করুন। বাঙালি আলুভাতে খেলে খুশি। ইউপির আলু খাওয়ার দরকার কী, এখানে চাল খান, আলুও খান। হজম ভাল হবে।”

মুখ্যমন্ত্রী জানতে চান, নতুন আলু বাজারে আসার আগে কেন পুরনো আলু হিমঘর থেকে বের করা হচ্ছে।তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, “এর পরে আলু বিক্রি না হলে বলবেন সরকার তুমি নাও। কোথায় নেবে, আপনারা কোল্ড স্টোরেজ থেকে বের না করলে আমি কম দামে সুফল বাংলার স্টোর থেকে বিক্রির নির্দেশ দেব।” মুরগির মাংস, ডিমের দামবৃদ্ধি নিয়েও কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী। “চিকেনের দাম এত কেন, লোকে খাবে কী, ১৮৫ টাকা হল কেন মাংসের দাম?” রাজ্যের সর্বত্র ১৫০ টাকার বেশি পোল্ট্রি মুরগির মাংস কেউ বিক্রি করলে পুলিশ তাঁদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবে বলে ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

বৈঠকে মৎস্য দফতরকে মাছ উৎপাদন বাড়ানোর কথা বলেছেন মমতা। মনে করিয়ে দিয়েছেন, এ বছর তাঁর সরকারের লক্ষ্য হল বছরে ৫ লক্ষ মেট্রিক টন মাছ উৎপাদন করা। এর পাশাপাশি, সবজির গাড়িগুলি যাতে রাস্তায় কোনও সমস্যার মধ্যে না পড়ে তা দেখার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে তিনি বলেন, সবজির গাড়িতে যেন অন্য কিছু না আসে। সেগুলো যেন নজর রাখা হয়। প্রয়োজনে নাকা চেকিং বাড়িয়ে নজর রাখতে হবে।

মুখ্যমন্ত্রী ফের অভিযোগ করেন, কেন্দ্র একশ দিনের টাকা দিচ্ছে না। গ্রামীণ আবাসে টাকা নেই। রাস্তার টাকা নেই। তিনি বলেন, রাজ্যে পোলট্রি খাদ্য তৈরি করুন। সারের কারখানা শুরু করুন। শিল্প পার্ক জমি দেব। বিনামূল্যে জমি দেব। ৩ বছরের গ্যারান্টি দেব। ভালো জিনিস দিলে আরও তিন বছর বাড়ানো হবে।কৃষি বিশ্ব বিদ্যালয়ের সঙ্গে কথা বলার জন্য প্রদীপ মজুমদারকে নির্দেশ দেন।বলেন, বণিকসভার সঙ্গে কথা বলুন। গোপালিককে  দ্বায়িত্ব।

পুলিশের কাজ হচ্ছে শক সবজি মাছ এগুলোর যাতে অসুবিধা না হয়। সাঁতরাগাছি ব্রিজ বন্ধ হচ্ছে যেন অসুবিধা না হয়।তিনি এদিন সাপ জানান, উচ্ছেদ হবে না। করতে দেব না।পোর্ট, রেল যা ইচ্ছা করছে।কিন্তু উচ্ছেদ করতে দেওয়া হবে না।

Previous articleনম্বর বাড়িয়ে যাঁরা চাকরি পেলেন, তাঁরা গ্রেফতার নন কেন? প্রশ্ন তুলল আদালত