চিকিৎসা করাতে এসে চুরি দুটি কিডনিই! ভুয়ো চিকিৎসকের অঙ্গ চাইলেন রোগী   

রোগীর পরিবার সূত্রে খবর, ৩৮ বছর বয়সি সুনীতা দেবী গত ৩ সেপ্টেম্বর মুজফ্ফরপুরের বরিয়ারপুর গ্রামে জরায়ুর অস্ত্রোপচারের জন্য একটি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন। অভিযোগ, সুনীতা বা তাঁর পরিবারের অনুমতি ছাড়াই তাঁর ২টি কিডনি বের করে নিয়েছে নার্সিং হোমের চিকিৎসকরা।

হাসপাতালে চিকিৎসা (Traetment) করাতে এসে দু’টি কিডনিই চুরি গিয়েছে এক মহিলার। বর্তমানে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন তিনি। চিকিৎসকের (Doctor) অমানবিক কর্মকাণ্ডের জেরে ওই মহিলার অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক। রোগীর পরিবারের অভিযোগ, অভিযুক্ত চিকিৎসকের থেকে কিডনি নিয়ে তাঁর দেহে প্রতিস্থাপন করা হোক। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের (Bihar) মুজফ্ফরপুরে (Muzaffarpur)। এদিকে পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে অভিযুক্ত চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোগীর পরিবার সূত্রে খবর, ৩৮ বছর বয়সি সুনীতা দেবী গত ৩ সেপ্টেম্বর মুজফ্ফরপুরের বরিয়ারপুর গ্রামে জরায়ুর অস্ত্রোপচারের জন্য একটি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন। অভিযোগ, সুনীতা বা তাঁর পরিবারের অনুমতি ছাড়াই তাঁর ২টি কিডনি বের করে নিয়েছে নার্সিং হোমের চিকিৎসকরা। প্রথমে বিষয়টি বুঝতে না পারলেও রোগীর কিডনি যে তাঁর শরীর থেকে বের করে নেওয়া হয়েছে অপর একটি হাসপাতালে ভর্তির পর বিষয়টি সামনে আসে। আর তারপরই বিক্ষোভে ফেটে পড়ন রোগীর আত্মীয় পরিজনরা।

সুনীতা দেবী মুজফ্‌ফরপুরের বেরিয়ারপুর গ্রামের বাসিন্দা। তাঁর অভিযোগ, গত ৩ সেপ্টেম্বর স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে জরায়ুর অস্ত্রোপচারের জন্য ভরতি হন। তখনই তাঁর অজান্তে চিকিৎসক তাঁর কিডনি বাদ দেয়। সুনীতার অভিযোগ, বেআইনি অঙ্গ পাচারের কারবারে যুক্ত ওই চিকিৎসক। এদিকে অস্ত্রোপচারের কিছু পরে মহিলার অসম্ভব পেটে ব্যথা শুরু হয়। এরপর মুজাফফরপুরে অবস্থিত সরকারি শ্রী কৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ এবং হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। সেখানে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরীক্ষা করে জানা যায় সুনীতি দেবীর শরীরে দু’টি কিডনিই নেই। এরপর এক মুহূর্ত সময় নষ্ট না করে দ্রুত তাঁকে পাটনায় (Patna) অবস্থিত ইন্দিরা গান্ধী ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস (Indira Gandhi Institute of Medical Sciences) স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানে চিকিৎসার পরে ফের মুজাফফরপুর এসকেএমসিএইচ (SKMCH) হাসপাতালে পাঠানো হয়। বর্তমানে সেখানে প্রতিদিন ডায়ালিসিস (Dialysis) করতে হচ্ছে সঙ্কটজনক সুনীতা দেবীকে।

ইন্দিরা গান্ধী ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেসের তরফে জানানো হয়েছে, বর্তমানে নিয়মিত ডায়ালিসিস করত হচ্ছে অসুস্থ মহিলাকে। উপযুক্ত কিডনির সন্ধান পেলে তাঁর শরীরে স্থাপন করা হবে। এদিকে নিজের দু’টি কিডনি হারানো মহিলা ও তাঁর পরিবার বেসরকারি হাসপাতালের ওই চিকিৎসককে কঠিন শাস্তি দাবি করেন।

এদিকে সমস্ত ঘটনা জানার পর সুনীতা দেবীর পরিবার পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছে। কিডনি চুরির (Kideny Stolen) ঘটনায় দুই অভিযুক্ত শুভাকান্ত ক্লিনিকের মালিক পবন কুমার এবং ডাক্তার আর কে সিং সেপ্টেম্বর মাস থেকেই পলাতক। তদন্তে উঠে এসেছে আরও অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। নার্সিং হোমটি রেজিস্টার্ড নয়। আর যে ডাক্তারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারও শিক্ষাগত যোগ্যতাও (Education Qualification) ভুয়ো।

Previous article‘ওয়ান কান্ট্রি ওয়ান চার্জার’ পরিকল্পনার বাস্তবায়নে উদ্যোগী কেন্দ্র