রাজ্য সরকারের উদ্যোগ, SSKM-এ বসছে আরও আধুনিক যন্ত্রপাতি

রাজ্য সরকার কলকাতার এসএসকেএম (SSKM) হাসপাতালের পরিকাঠামো উন্নয়নে বেশ কিছু নতুন অত্যাধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর জন্য ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল সার্ভিস কর্পোরেশনের মাধ্যমে ১৮ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া সম্ভাব্য কোভিড সংক্রমন বৃদ্ধির আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে ই এন টি বিভাগের জন্য ১০ টি প্লেটলেট ইনকিউবেটর ও অ্যাজিটেটর সহ বিভিন্ন সরঞ্জাম কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে।

ফের কোভিড সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা মাথাচাড়া দেওয়ায় রাজ্য সরকার বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে পরিকাঠামো প্রস্তুত রাখার নির্দেশ দিয়েছে। এজন্য মোট ৩০৭ কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ করা হচ্ছে। তারই অঙ্গ হিসাবে এই সব সরঞ্জাম কেনার উদ্যোগ।

চিন, জাপান সহ বিশ্বের কয়েকটি দেশে ফের মাথা চাড়া দিয়েছে কোভিড। তবে এই দেশ তথা রাজ্যে পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রনেই রয়েছে। করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট সামনে আসায় সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কায় রাজ্য সরকার সবরকম পরিকাঠামো প্রস্তুত রাখছে। কোভিড চিকিৎসার জন্য রাজ্যের ৯২টি হাসপাতালকে চিহ্নিত করে প্রস্তুত করা হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীদেরও প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। রাজ্য সরকারের কোভিড নিয়ন্ত্রনে গঠিত বিশেষজ্ঞ দলের পরামর্শে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে নবান্নে প্রশাসনিক সূত্রে জানা গেছে। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, আরজিকর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, শম্ভুনাথ পন্ডিত হাসপাতাল, এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল, বিসি রায় শিশু হাসপাতালে কোভিড চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি হাওড়ার পাঁচটি, উত্তর ২৪ পরগনার সাতটি ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৫ টি হাসপাতালে কোভিড রোগীদের চিকিৎসার পরিকাঠামো তৈরি রাখা হচ্ছে। হুগলির চন্দননগর স্টেট জেনারেল হাসপাতাল, শ্রীরামপুর ওয়ার্ল্ড হাসপাতাল সহ পাঁচটি হাসপাতালকে প্রয়োজনে শুধুমাত্র কোভিড চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত রাখা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। উত্তরবঙ্গেও বিভিন্ন জেলার একাধিক হাসপাতালকে পরিকাঠামো প্রস্তুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

কোভিড নিয়ে এখনই কড়াকড়ির পথে না হাঁটলেও ফের সংক্রমণের বাড়বাড়ন্তের আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুতি শুরু করেছে রাজ্য। বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে স্থায়ী কোভিড ওয়ার্ড তৈরির কাজও শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য দফতর ইতিমধ্যে ৩০৭ কোটি টাকা বরাদ্দও করেছে।এই টাকায় বিভিন্ন জেলা হাসপাতালে স্থায়ী কোভিড ইউনিট তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। ১৬টি হাসপাতালে ১০০ শয্যার কোভিড ওয়ার্ড তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। এছাড়াও ৪টি হাসপাতালে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট কোভিড ওয়ার্ড এবং ১১৩ টি হাসপাতালে ২০ শয্যা বিশিষ্ট ওয়ার্ড তৈরি করা হচ্ছে।

রাজ্যের মোট ১৩৩টি হাসপাতালে স্থায়ী কোভিড ওয়ার্ড গড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ধাপে ধাপে । এর মধ্যে ১৬টি হাসপাতালে ১০০ শয্যার কোভিড ওয়ার্ড তৈরি করা হচ্ছে। সে জন্য পূর্ব বর্ধমানের তিনটি, হুগলি ও পূর্ব মেদিনীপুরের দু’টি করে এবং আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, মালদহ, উত্তর ২৪ পরগনা, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান জেলায় একটি করে হাসপাতালকে বেছে নেওয়া হয়েছে। কোচবিহার, পশ্চিম মেদিনীপুর, মুর্শিদাবাদ ও পুরুলিয়া- এই চারটি জেলায় গড়ে তোলা হচ্ছে আরও চারটি কোভিড ওয়ার্ড যেখানে ৫০টি করে শয্যা থাকবে। সব জেলা মিলিয়ে আরও ১১৩টি ব্লক অথবা গ্রামীণ হাসপাতালে ২০ শয্যার কোভিড ওয়ার্ড তৈরি হবে।

আরও পড়ুন- ত্রিপুরায় ফুটবে ঘাসফুল! অভিষেকের নেতৃত্বে রণকৌশল তৈরি তৃণমূলের

 

Previous articleত্রিপুরায় ফুটবে ঘাসফুল! অভিষেকের নেতৃত্বে রণকৌশল তৈরি তৃণমূলের