“ডিরোজিয়ান পন্থী” ভাবধারায় বিশ্বাসী প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী পুজোর থিম “ধর্মনিরপেক্ষতা”

ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের কথা মাথায় রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা সর্বধর্মের বার্তা দেবে মণ্ডপ সজ্জায়। শ্রদ্ধা-সম্মান জানাতে থাকবে মনীষীদের ছবি। ডিরোজিও, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, স্বামী বিবেকানন্দ, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় সহ আরও অনেক মনীষীর ছবি শোভা পাবে মণ্ডপ জুড়ে

সোমনাথ বিশ্বাস: প্রায় দু’শতকের (প্রথমে কলেজ, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়) প্রথা ভেঙে এবার প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হতে চলেছে বাগদেবীর আরাধনা। দেশের অন্যতম এলিট ক্লাস বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে জায়গা করে নেওয়া “ডিরোজিয়ান পন্থী” ভাবধারায় বিশ্বাসী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসিডেন্সিতে আগে কোনওদিন বাগদেবীর আরাধনা হয়নি। অতীতের সেই ট্র্যাডিশন ভেঙে এবার প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে হতে চলেছে সরস্বতী পুজো! তাই ডিরোজিওকে সম্মান দিয়েই, তাঁর আদর্শকে মাথায় রেখেই হবে পুজো, সিদ্ধান্ত উদ্যোগী পড়ুয়াদের। পুজোর থিম “ধর্মনিরপেক্ষতা”! এবার প্রজাতন্ত্র দিবসে সরস্বতী পুজো, তাই ভারতের তেরঙ্গা জাতীয় পতাকা আলোকিত করবে পুজো মণ্ডপ। জাতীয় পতাকার সামনেই থাকবে বাগদেবীর মূর্তি।

ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের কথা মাথায় রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা সর্বধর্মের বার্তা দেবে মণ্ডপ সজ্জায়। শ্রদ্ধা-সম্মান জানাতে থাকবে মনীষীদের ছবি। ডিরোজিও, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, স্বামী বিবেকানন্দ, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় সহ আরও অনেক মনীষীর ছবি শোভা পাবে মণ্ডপ জুড়ে।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী পুজোর চমকের এখানেই শেষ নয়, পুজো করবেন মহিলা পুরোহিত! প্রেসিডেন্সির প্রাক্তনী রাজন্যা হালদার থাকবেন পুরোহিতের ভূমিকায়। নারী ক্ষমতায়নের বার্তা দিতেই এমন অভিনব ভাবনা পুজোয় উদ্যোগী পড়ুয়াদের। প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে হতে চলা প্রথম বছর সরস্বতী পুজোর প্রতিমা দিচ্ছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাল ভট্টাচার্য। বুধবার বিকেলে ৩টে শুরু হবে পুজো।

এ প্রসঙ্গে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদ ইউনিটের সম্পাদক অরিত্র মন্ডল বলেন, “অনেক বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে পুজো হচ্ছে, এর থেকে খুশির আর কিছু হতে পারে না। বাগদেবী সমস্ত ধর্মের শিক্ষার্থীদের। এবার পুজোয় ‘ধর্মনিরপেক্ষ ভারত’ আমাদের থিম।”

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সহ-সভাপতি প্রান্তিক চক্রবর্তী বলেন, “প্রেসিডেন্সি পথ দেখাচ্ছে। আগামীতেও পথ দেখাবে। সকল ছাত্র-ছাত্রীদের সরস্বতী পুজোর অনেক অনেক শুভেচ্ছা। এমন উদ্যোগের জন্য উদ্যোক্তাদের কুর্নিশ জানাই।”

প্রসঙ্গত, এ বছর প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ইউনিটের তরফে বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী আরাধনার উদ্যোগ নেওয়া হয়। বিষয়টি নিয়ে আগেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে আবেদন করেছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। সকলের মতামত নিয়ে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ইউনিট ভোটাভুটিও করে। সেখানে মায়ের আরাধনার পক্ষেই সংখ্যালঘু পড়ুয়া রায় দেন। তাই কর্তৃপক্ষের অনুমতি না মিললেও মূল ফটকের বাইরে “অরাজনৈতকভাবে” বাগদেবীর আরাধনা করবে তৃণমূল ছাত্র পরিষেদ। টুইটারের ভোটাভুটিতে দেখা যাচ্ছে, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্য়ালয়ে সরস্বতীর আরাধনার পক্ষে ভোট পড়েছে ৮৯.৩ শতাংশ। অন্যদিকে ভোট পড়েছে মাত্র ১০.৭ শতাংশ।

ক্যাম্পাসে পুজো করতে চেয়ে রাজ্যের শাসক দলের ছাত্র সংগঠন। ছাত্রছাত্রীরা জানিয়েছেন, পুজোর অনুমতি চেয়ে একাধিকবার চিঠি, ই-মেল করা হয়েছিল ডিন অফ স্টুডেন্টস অরুণকুমার মাইতিকে। প্রতিবারই চিঠিতে “কনটেন্ট নট ভেরিফায়েড” বলে পুজোর আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন তিনি। যুক্তি খাড়া করে তিনি জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্সি ডিরোজিয়ান পন্থায় বিশ্বাসী, ধর্মনিরপেক্ষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তাই সেখানে কোনও পুজোর অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয়। তবে সরস্বতী পুজোর পক্ষে ছাত্রছাত্রীদের একটা বড় অংশের মত ছিল। তাই অনুমতি না পেয়ে গেটের কাছেই পুজো করবেন তাঁরা। চলছে চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রস্তুতিও।

Previous articleএকদিনের ক্রিকেটে তিন বছর পর শতরান রোহিতের, বিরাট রেকর্ড ভাঙলেন শুভমন