কংগ্রেসকে ১৩টি ছেড়ে ত্রিপুরায় ৪৭ আসনে লড়বে বামেরা, লড়াইয়ের ময়দানে নেই মানিক

জোট সমীকরণে সিলমোহর। ত্রিপুরা বিধানসভা ভোটে কংগ্রেসের হাত ধরেই লড়াই করবে বামেরা। ৬০ আসন বিশিষ্ট ত্রিপুরা বিধানসভায় কংগ্রেসকে ১৩টি আসন ছেড়ে বাকি ৪৭টি আসনে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করল বামফ্রন্ট। তবে বামেদের প্রার্থী তালিকায় নাম নেই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বর্তমানে বিরোধী দলনেতা মানিক সরকারের।

মানিকবাবুর ভোটে না লড়ার প্রসঙ্গ নিয়ে ত্রিপুরা সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক জিতেন্দ্র চৌধুরী বলেন, “প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই এবার ভোটে না লড়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন। এদিন সকালেও আমরা মানিক সরকারকে বোঝানোর অনেক চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু তিনি রাজি হননি। প্রার্থী না হয়ে প্রচারের কাজে ঝাঁপাতে চেয়েছেন। অর্থাৎ, সংগঠনের দিকেই বেশি মনোনিবেশ করবেন তিনি।”

এদিকে নির্বাচন ঘোষণার পর থেকে বামেদের তালিকা প্রকাশ করার কথা থাকলেও, কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা নিয়ে ঝুলে ছিল গোটা বিষয়টি। তিন দফায় পিছনো হয় তালিকা ঘোষণার সময়। ১৬ ফেব্রুয়ারি ভোট। এখনও আসন রফা চূড়ান্ত না হওয়ায় রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। গত নির্বাচনে ৫৭টি আসনে লড়ে ১৬টি আসন পেয়েছিল সিপিএম। ৫৯টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও, একটিতেও জেতেনি কংগ্রেস। তাই কংগ্রেসকে ১০টির বেশি আসন ছাড়তে রাজি ছিল না বামফ্রন্ট। কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়্গের দাবি ছিল কমপক্ষে ২০টি আসন। তা নিয়েই জট। বুধবার সন্ধ্যায় মেটে সেই সমস্যা। সিপিএম ৪৩ টি আসনে, সিপিআই ১ টি আসনে, আরএসপি ১ টি আসনে, ফরওয়ার্ড ব্লক ১ টি আসনে এবং নির্দল ১টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। মানিক সরকারের পাশাপাশি আরও সাত বিধায়ককে এবার ভোটের লড়াইয়ে দেখা যাবে না।

Previous article74th Republic Day : সাধারণতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট মোদি-শাহের