‘দুশ্চিন্তা’সেলেবদের!বিভ্রান্তিকর বিজ্ঞাপন দিলে 50 লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া বলছেন, অমুক টুথপেস্টে দাঁত মাজুন, দাঁতের কোনও সমস্যাই কখনও হবেনা। আপনি তাই-ই করলেন, কিন্তু কোনও বাভই হলো না।
অথবা করিনা কাপুর বা বিদ্যা বালান আপনাকে অমুক কসমেটিক ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছেন, যা ব্যবহার করলে আপনিও বলিউডে স্ক্রিন শেয়ার করতে পারবেন। করলেন তাই। কিন্তু বলিউড তো অনেক দূর,বাংলার চতুর্থ শ্রেনির সিরিয়ালে জনতা সাজার জন্যও আপনাকে কেউ ডাকলো না।
দাদা-র পরামর্শ মেনে অমুক কোম্পানির লোহার রড দিয়ে বাড়ি বানানোর পরেও আপনার বাড়িতে ফাটল। টিভি খুললে বা কাগজ হাতে নিলেই
বিগ-বি থেকে টাইগার স্রফ, সবাই আপনাকে ‘সেরা’ জিনিস ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েই চলেছেন। এ সব পরামর্শ মেনে চলে আপনার কোন ধরনের উপকার হয়েছে, তা আপনি নিজেও জানেন না। অথচ এ ধরনের প্ররোচনা দিয়ে আপনাকে কনফিউজড করার বিনিময়ে সেলেবরা রোজগার করছেন কোটি কোটি টাকা।
সেলেবদের এসব প্রচার এবার আইনি জালে। পণ্যের বিজ্ঞাপনে মুখ দেখানোর আগে এবার তারকাদের একশো ভাগ সতর্ক হওয়ার দিন এসে গেলো। নাহলেই অর্থদণ্ড।
বিজ্ঞাপনে মুখ দেখানো সেলেবদের এবার ‘ঘোর বিপদ’। কোনও বিজ্ঞাপনে কোনও তারকা-র বক্তব্য যদি বিভ্রান্তিকর বা অসত্য হয়, তাহলে সেই সেলেব্রিটিকে 50 লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা দিতে হবে।
সংসদে পাশ হলো ‘কনজিউমার প্রোটেকশন অ্যাক্ট- 2019’। এতদিন চালু থাকা কনজিউমার প্রোটেকশন অ্যাক্ট 1986-কে সরিয়ে এবার নতুন বিধি। আর সংসদে অনুমোদিত এই নতুন বিলে সাফ বলা রয়েছে যে,বিভ্রান্তিকর বিজ্ঞাপন দিলেই সেলেবদের শুরুতেই 10 লক্ষ টাকা জরিমানা দিতে হবে।
নতুন এই বিলের ভিত্তিতে একটি নতুন কমিটি বা কনজিউমার প্রোটেকশন অথরিটি তৈরি করতে চলেছে সরকার। আর এই অথরিটির কাছেই পাঠানো যাবে যাবতীয় অভাব অভিযোগ। সেই অথরিটিই প্রয়োজনে সেলেবদের ঘাড়ে কোপ মারবে আপনার অভিযোগ পেলেই। লোকসভায় এই বিলে পেশ করেছেন কেন্দ্রীয় ক্রেতা সুরক্ষা মন্ত্রী রাম বিলাস পাশোয়ান।

নতুন আইনে বলা হয়েছে, যে সমস্ত বিজ্ঞাপন সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে , তা নিয়েই আম জনতার যাবতীয় ক্ষোভের কথা জানানো যাবে এই অথরিটিকে। এই নয়া বিল অনুসারে একবারের অপরাধে 10 লাখ টাকা জরিমানা হবে সেলিব্রিটির। আর সেই একই অপরাধ দ্বিতীয়বার করলে 50 লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হবে। বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে দেখা গিয়েছে গায়ের রঙ নিয়ে সেলেবরা বিভ্রান্তিকর বার্তা দিচ্ছেন। আর তা ঘিরে বহু সময়ে ক্ষোভ বিক্ষোভ উঠে এসেছে দেশের নানান প্রান্ত থেকে। এবার সেই সমস্ত বিজ্ঞাপনও এই বিলের নজরে আসতে চলেছে।

সেলেবদের মোটা রোজগারের একটা বড় ক্ষেত্রে এবার বোধহয় কার্ফু জারি হতে চলেছে।