কন্যা সানাকে আড়াল করতে ময়দানে সৌরভ !

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রতিবাদে জ্বলছে দেশ ৷
সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ-প্রতিবাদের আবহেই খুশবন্ত সিংকে উদ্ধৃত করে সৌরভ-কন্যার পোস্ট ঘিরে উত্তাল হয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়া। এমনকি জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের পথ ধরে দেশের কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিক্ষোভ-প্রতিবাদে মুখর হয়ে উঠছে তার একটি মানচিত্রও পোস্ট করেন তিনি।
তা আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে আসতেই এ বার ব্যাট ধরলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।
বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট বললেন, ওকে জড়াবেন না। রাজনীতি সম্পর্কে সানা মোটেই সচেতন নয়। ও যে খুবই ছোট।
নেটিজেনদের কাছে পিতা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের আর্জি, তাঁর বাচ্চা মেয়ে সানাকে এসবের বাইরে রাখার ৷ সৌরভের মতে, রাজনীতির গভীরতা বোঝার মতো বয়স সানার হয়নি ৷


সবে ১৮-য় পা দিয়েছেন সৌরভকন্যা সানা ৷ কিন্তু ইতিমধ্যেই তাঁর বলিষ্ঠ কন্ঠস্বরের প্রশংসা মন কাড়ছে নেটিজেনদের ৷
ইনস্টাগ্রাম পোস্টে কোনও রাখঢাক না রেখেই সরাসরি সংঘ পরিবারকে নিশানা করেন সানা। লেখক খুশবন্ত সিংয়ের ‘দ্য এন্ড অফ ইন্ডিয়া’ বইয়ের একটি অংশ শেয়ার করেছেন তিনি। যেখানে মোদি সরকারের নয়া আইনের বিরোধিতাকেই ইঙ্গিত করা হয়েছে। সানার পোস্ট মুহূর্তে প্রশংসা কেড়ে নেয় নেটিজেনদের ৷ কেউ কেউ আবার তার মতের সমালোচনাও শুরু করেন ৷ মুহূর্তেই ভাইরাল সেই পোস্ট ৷ এই মুহূর্তে CAA NRC নিয়ে উত্তপ্ত রাজ্য থেকে জাতীয় রাজনীতি ৷ সেই উত্তাপের আঁচ মেয়ের গায়ে লাগার আগেই সাবধানী বাবা ব্যাট হাতে মাঠে নামতে বাধ্য হলেন ।
অষ্টাদশী সানা তাঁর ইনস্টাগ্রামের স্টেটাসে লেখেন, ‘যাঁরা ভাবছেন আমরা মুসলিম ও খ্রিস্টান নই, তাই চিন্তার কোনও কারণ নেই, তাঁরা মূর্খের স্বর্গে বাস করছেন। আজ বামপন্থী, ইতিহাসবিদ ও পশ্চিমি সংস্কৃতি পছন্দ করা যুবাদের নিশানা করছে সংঘ। এর পরের ধাপে যে মেয়েরা স্কার্ট পরেন, তাঁরা নীতি পুলিশের দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন। হয়তো দাঁতের মাজনের বদলে টুথপেস্ট ব্যবহারের কারণে সঙ্ঘ পরিবার আপনার জন্য শাস্তি বরাদ্দ করেছেন। দেখা হলে জয় শ্রীরাম না বললে, যাঁরা হাত মিলিয়ে, বা চুমু খেয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন তাঁদের নিশানা হওয়ার আশঙ্কা থাকবে।’’ সানার কথায়, ‘নয়া এই ভারতে কেউই নিরাপদ নয়’।