মালিকপক্ষ নির্ধারিত সময়ে পিএফ না দিলেও জরিমানা নয়, সিদ্ধান্ত ইপিএফও -র

মার্চ মাস থেকে জারি হয়েছে লকডাউন। এই অবস্থায় অনেক সংস্থা আর্থিক চাপের মুখে পড়েছে। ফলে বাধ্যতামূলক হলেও এই সব সংস্থার পক্ষে পিএফের টাকা জমা দেওয়া কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। শুক্রবার বণিক সভা পিএইচডিসিসিআই আয়োজিত ওয়েবিনারে কেন্দ্রীয় প্রভিডেন্ট ফান্ড কমিশনার সুনীল বার্থওয়াল বলেন, মালিকপক্ষ লকডাউনের মধ্যে পিএফ -এর টাকা দিতে দেরি করলে জরিমানা করা হবে না।

ইপিএফ স্কিম ১৯৫২ অনুসারে মালিকপক্ষ বাধ্যতামূলক এই পিএফের টাকা সময় মতো জমা না দিলে তার উপর জরিমানা কার্যকর হতো। কর্তৃপক্ষকে প্রতি মাসের এই বাবদ টাকা পরের মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হয়। তবে এক্ষেত্রে অতিরিক্ত ১০ দিন সময় দেওয়া হতো। শ্রম মন্ত্রকের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, এই সংকটের মধ্যে অনেক সংস্থা টাকা জমা করতে পারছে না। সবদিক বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে টাকা জমা দিতে না পারলেও জরিমানা করা হবে না। এই নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে ইপিএফও-র ফিল্ড অফিসগুলিতেও। এর ফলে ৬.৫ লক্ষ ইপিএফের আওতায় থাকা সংস্থার ‌সুবিধা হবে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন ঘোষণা করেছেন বেসরকারি ক্ষেত্রে ইপিএফে ১২ শতাংশের বদলে ১০ শতাংশ হারে কাটা হবে। আগামী তিন মাস ইপিএফের ক্ষেত্রে এটা প্রযোজ্য। তবে সরকারি ক্ষেত্রে ১২ শতাংশ পিএফ কাটা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।