ঋণের ভারে জর্জরিত, গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা একই পরিবারের ৪ সদস্যের

মারণ করোনা সংকট এবার প্রাণ কাড়ল একই পরিবারের চার সদস্যের। গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন লকডাউনের জেরে ভয়াবহ আর্থিক অনটনে থাকা ওই পরিবারের সদস্যরা। শনিবার মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটেছে পঞ্জাবের ফরিদকোট জেলায়। ঘটনা তদন্তে নেমে পুলিশ একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে। যেখানে লেখা আছে ওই পরিবারের চরম অসহায়তার কথা।

বাড়ির প্রধান ধরমপালের লেখা ওই সুইসাইড-নোট থেকে জানা গিয়েছে, ৮ লক্ষ টাকা ঋণ নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ভয়াবহ এই পরিস্থিতিতে তা শোধ করতে পারেননি। সুইসাইড নোটের পাতায় তুলে ধরা হয়েছে করোনা পরিস্থিতি ও লকডাউনের কারণে কিভাবে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছে এই পরিবার। ফরিদকোট জেলার এসপি সেওয়া সিং মালহি বলেন, বাড়ির প্রধান ধরমপাল বাড়িতে একটি এলপিজি সিলিন্ডার নিয়ে আসেন। গোটা পরিবার যখন ঘুমোচ্ছিল তখন ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেন তিনি। নিজের গায়ে ও পরিবারের সদস্যদের গায়ে পুরো ১০ লিটার কেরোসিন তেল ঢালেন। এরপর গ্যাস সিলিন্ডারের রেগুলেটর খুলে আগুন ধরিয়ে দেন। মুহুর্তের মধ্যে গোটা ঘরে আগুন লেগে যায়। জীবন্ত দগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় পরিবারের চার সদস্যের।

আরও পড়ুন: সমুদ্রে ভাসমান ‘ভুতুড়ে জাহাজ’! বিজ্ঞানকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ভাইরাল ভিডিও

সুইসাইড নোটের ভিত্তিতে পুলিশের দাবি, ধরমপাল কোনও একজন ব্যক্তির কাছ থেকে আট লক্ষ টাকা ঋণ নিয়ে ছিলেন। এবং সেই টাকা অন্য কাউকে দেওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি ও লকডাউনের কারণে টাকা শোধ করতে পারেননি তিনি। প্রবল মানসিক চাপের মধ্যে পড়ে বেছে নেন আত্মহত্যার রাস্তা। তবে এই ঘটনার পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।