আব্বাসের দাবি, ৬৫- ৭০ আসন দিতে হবে, নতুন চাপে বাম-কং জোট

জাতীয় স্তরের দু’টি দল, কংগ্রেস এবং সিপিএমকে বেশ ভালোই ‘খেলিয়ে যাচ্ছে’ আব্বাস সিদ্দিকির (Abbas Siddiqui) সদ্যজাত ISF বা ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট।

দু’তরফের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক হয়ে গিয়েছে আব্বাসের দলের। আসন সমঝোতা নিয়ে ফের বৈঠকের কথা ১৬ তারিখ৷ কং-বাম (Cong-Left) জানিয়ে দিয়েছে মোটামুটি ৪৫ আসন তারা ISF-কে ছাড়তে পারে৷ প্রাথমিকভাবে আব্বাস এই আসনে রাজি থাকলেও এখন বেঁকে বসেছে৷ সূত্রের খবর, জোটের কাছে তাঁরা ৬৫-৭০টি আসন ছাড়ার দাবি জানিয়েছে। ফলে বাম ও কংগ্রেস পড়েছে নতুন চাপে৷ ISF-এর এক নেতার জানিয়েছে, আগামীকাল, মঙ্গলবার, ১৬ তারিখ কিংবা ১৭ তারিখে মধ্যে আসন ভাগাভাগি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে। আর তারপর তিন পক্ষের নেতারা এক সঙ্গে বসেই তা ঘোষণা করবেন।

এদিকে ISF-এর নয়া দাবি ভাবিয়ে তুলেছে জোট- নেতাদের। এর কারণ, ইতিমধ্যে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস ১৯৩টি আসনের রফা চূড়ান্ত করেছে। ৯২টি আসনে কংগ্রেস ও ১০১টি আসনে লড়াই করবে বামেরা। এরপর আব্বাসের দলের বাড়তি আসনের দাবি কী ভাবে মেটানো হবে তা নিয়েই ধন্দ তৈরি হয়েছে। আসন ভাগ নিয়ে আব্বাসের সঙ্গে জোট জলে যাক, তা চাইছে না বাম-কংগ্রেস নেতারা। এই জোটে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন আব্বাসও। সূত্রের খবর, আগামী দু’দিন ISF-এর সঙ্গে আসন রফা নিয়ে কয়েক দফা বৈঠক হবে বাম-কংগ্রেস নেতৃত্বের। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি নিজেও এবারের বৈঠকে থাকতে পারেন৷ কংগ্রেস হাইকম্যান্ড চাইছে দ্রুত বাংলায় ভোটের জোট চূড়ান্ত হয়ে যাক।

Advt