অমিত শাহের দাবিকে ‘স্টান্টবাজি ‘ বলে কটাক্ষ ডেরেকের

বসন্তের রঙের উৎসবে এবার লেগেছে রাজনীতির ছোঁয়া।
বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফা সম্পন্ন।  গতকাল প্রথম দফায় ঝাড়গ্রামের ৪, পূর্ব মেদিনীপুরের ৭, পশ্চিম মেদিনীপুরের ৬,  বাঁকুড়ার ৪ ও পুরুলিয়ার ৯টি আসনে হল ভোটগ্রহণ। ৫ জেলার ৩০ আসনের প্রার্থীদের ভাগ্য ইভিএমে বন্দি হল।

অমিত শাহ বললেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে প্রথম দফায় ৩০টির মধ্যে ২৬টিতে জিতব। বড় ব্যবধানে এই সব কেন্দ্রে জিতব। পশ্চিমবঙ্গের ভোট হয়েছে শান্তিপূর্ণ। বেশি ভোট পড়া বিজেপির পক্ষে শুভ সঙ্কেত।’
তার এই দাবিকে কটাক্ষ করে তৃণমূলের ডেরেক ও’ব্রায়েন সাফ জানিয়েছেন, অমিত শাহ যা বলছেন তা ‘ঢপবাজি’ । পড়ুন- ( স্টান্টবাজি) এছাড়া আর কিছুই নয় ।শুধুই চমক । মানুষকে ‘চমক’ দিয়ে ভুল বোঝানোর চেষ্টা।
বাংলায় অমিত শাহের ২০০ আসন দখলের ঘোষণাকেও কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘গুজরাত জিমখানাতে গিয়ে আসনসংখ্যা নিয়ে স্টান্টবাজি দেখান। ভুলে যাবেন না এটা বাংলা।’

ডেরেক স্মরণ করিয়ে দেন, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, ঝাড়খন্ড, মহারাষ্ট্র, দিল্লির বিধানসভা ভোটে শাহের ভবিষ্যতবাণীর উল্টো ফল। বাংলাতেও তাই হবে।


অমিত শাহের সাফাই, নির্বাচন কমিশনের উপর কোনও চাপ তৈরি করেনি বিজেপি। দুই বিজেপি নেতার ফোন কে ট্যাপ করল? যা কথা ফোনে হয়েছে, তা লিখিত আকারে কমিশনকে দেওয়া হয়েছে। কেমন গণতন্ত্র চলছে রাজ্যে?

Advt