উপত্যকায় বানচাল নাশকতার ছক, সেনার গুলিতে খতম ২ লস্কর জঙ্গি

রক্তাক্ত উপত্যকায় শান্তি স্বপ্নমাত্র। ধারা অব্যাহত রেখে এদিন ফের একবার সেনা-জঙ্গি গুলির লড়াইয়ে রণক্ষেত্র হয়ে উঠলো ভূস্বর্গ কাশ্মীর(Kashmir)। বড়োসড়ো নাশকতা ঘটানোর আগেই উপত্যাকায় খতম হলো দুই লস্কর-ই-তৈবা(Lashkar-e-Taiba) জঙ্গি। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর কাশ্মীরের সোপোর এলাকার বারমুলা জেলায়। গুলিতে নিহত ২ জঙ্গির(terrorist) একজন পাকিস্তানী(Pakistan) বলে জানা যাচ্ছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রে খবর, মঙ্গলবার গোপন সূত্রে খবর আসে সোপোর এলাকায় গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে বেশ কয়েকজন জঙ্গি। নির্দিষ্ট খবরের ভিত্তিতে অভিযানে নামে পুলিশ ও আধাসেনা। গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে শুরু হয় তল্লাশি অভিযান। তল্লাশি অভিযান চলাকালীন পিছু হটবার জায়গা না পেয়ে বাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে জঙ্গিরা। পাল্টা গুলি ছোড়ে সেনাবাহিনী। দীর্ঘক্ষন দু’পক্ষের গুলির লড়াইয়ের পর মৃত্যু হয় ২ লস্কর জঙ্গির। মৃতদের নাম ওয়াসিম আহমেদ ও হামাস আলিয়াস আসরার আলিয়াস সারিয়া। এরমধ্যে ওয়াসিম স্থানীয় বাসিন্দা হলেও অপর জঙ্গি পাকিস্তানের বাসিন্দা বলে মনে করা হচ্ছে। নিহত জঙ্গিদের কাছ থেকে একটি একে-৪৭ রাইফেল, একটি ইনসাস রাইফেল ও অন্যান্য অস্ত্র-শস্ত্র এবং বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:প্রধানমন্ত্রীর ফোনে ‘চার্জড’ হয়ে বুধবার সকালে ফের ট্যুইট- তোপ ধনকড়ের

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে নিহত দুই জঙ্গি উপত্যাকায় নানান ধরনের অপরাধমূলক কাজ কর্মের সঙ্গে জড়িত ছিল। চলতি বছরেরই মার্চ মাসে দুই মিউনিসিপাল কাউন্সিলর ও একজন পুলিশকর্মীকে হত্যার ঘটনাতেও হামাস সক্রিয়ভাবে জড়িত। পাশাপাশি আলিয়াস ২০১৮ সাল থেকে উপত্যাকার জঙ্গী কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত। জঙ্গিযোগের সন্দেহে র জেরে সম্প্রতি পুলিশ গ্রেপ্তার করা হয়েছিল পরে অবশ্য মুক্তি দেওয়া হয় তাকে।

Advt