মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক হওয়া উচিত না উচিত নয়, অভিভাবক-সাধারণ মানুষের মতামত চাইছে সরকার

ফাইল ছবি

মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক নিয়ে মতামত চাইল রাজ্য সরকার। অভিভাবক, পড়ুয়া অথবা সাধারণ মানুষ মতামত জানাতে পারবেন। সোমবার দুপুর ২ টোর মধ্যে ইমেল করে মতামত জানাতে হবে।

অতিমারী পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক হবে কিনা তা নিয়ে গঠিত হয়েছে ছয় সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটি। তারা রিপোর্টে জানিয়েছেন, সম্ভবত বাতিল হচ্ছে মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। বিশেষজ্ঞ কমিটি মনে করছে এই করোনা সঙ্কটে মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক জোড়া পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। আর সেই কারণেই মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক নিয়ে অভিভাবক, পড়ুয়া অথবা সাধারণ মানুষের মতামত চাইছে রাজ্য সরকার। পরীক্ষা হওয়া উচিত না উচিত নয়, এ ব্যাপারে মতামত জানানো যাবে। মেল আইডি pbssm.spo@gmail.com, commissionerschooleducation@gmail.com, wbssed@gmail.com। এই তিনটে মেল আইডি মারফত পাঠানো যাবে মতামত।

৬ সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটি মনে করছে পরীক্ষার কোনও বিকল্প হয় না। কিন্তু রাজ্যের এই পরিস্থিতিতে এতজন পড়ুয়াকে নিয়ে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। পরিবর্তে ভাগ ভাগ করে কিছু মূল্যায়ন পদ্ধতির মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া যেতে পারে। মাধ্যমিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে নবম শ্রেণির বার্ষিক নম্বরের উপর ভিত্তি করে মূল্যায়ন করা হতে পারে। অভ্যন্তরীণ ফলাফলের উপর ভিত্তি করে ২২ লক্ষ্ পড়ুয়ার মার্কশিট তৈরি করা হতে পারে। অন্যদিকে দ্বাদশ শ্রেণির ক্ষেত্রে হোম অ্যাসাইনমেন্ট দিয়ে তার ভিত্তিতে চূড়ান্ত ফল নির্ণয় করা সম্ভব কী-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের সর্বভারতীয় বিভিন্ন পরীক্ষায় বসতে হয়। সেই ভিত্তিতে তাদের প্রস্তুতি এবং মূল্যায়ন প্রয়োজন।

আরও পড়ুন-দ্বাদশের পরীক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা টাকি হাউসের প্রাক্তনীদের সংগঠন টিব্যাকের

পাশাপাশি দ্বাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান এবং বাণিজ্য বিভাগের প্রাকটিক্যাল পরীক্ষা হয়ে থাকে। সেই পরীক্ষা গুলি বা এক্ষেত্রে কিভাবে নেওয়া সম্ভব তাও খতিয়ে দেখছে বিশেষজ্ঞ কমিটি। তবে সর্বোপরি ছয় সদস্যের কমিটি এই সিদ্ধান্তে এসেছে যে এই পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। পরীক্ষা দুটি বাতিলের কারণ হিসেবে প্রধানত যে যুক্তি দেখিয়েছেন কমিটি সেটি হল, মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের বয়স ১৫ এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের বয়স ১৭-১৮ । এই বয়সে কারোরই ভ্যাকসিন নেওয়া হয়নি। ভার্চুয়ালি বহুবার এই বিষয়টি নিয়ে বৈঠক করেছে। একটি বিষয়ে একমত যে পরীক্ষার্থীকে কখনোই প্রাণহানির দিকে ঠেলে দেওয়া যেতে পারে না।

Advt