রাজ্যসভার ১৬ আসনে নির্বাচন, ঘোড়া কেনাবেচার আশঙ্কায় সতর্ক বিরোধীরা

শুক্রবার ৪ রাজ্যের ১৬ রাজ্যসভা আসনে(Rajyasava) নির্বাচন। আর এই নির্বাচনে ঘোড়া কেনাবেচার আশঙ্কায় সতর্ক বিরোধী শিবির। পাশাপাশি এদিনের নির্বাচনে কড়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এই পর্বে মোট ৫৭ রাজ্যসভা আসনে নির্বাচন(Election) হওয়ার কথা ছিল। তবে মূল ভোটপর্বের আগে ৪১ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেন।

শুক্রবার যে ১৬ আসনে নির্বাচন তার মধ্যে মহারাষ্ট্রের ৬ আসনে প্রার্থীর সঙ্খ্যা ৬। হিসেব অনুযায়ী এর মধ্যে ২ আসনে বিজেপির জেতার সম্ভাবনা রয়েছে কিন্তু তারা ৩ জনকে প্রার্থী করেছে। শিব সেনা (Shiv Sena), এনসিপি(NCP) এবং কংগ্রেস(Congress) প্রত্যেকে একটি করে প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে পারবে। কিন্তু শিব সেনা প্রার্থী দিয়েছে ২টি। শিবসেনার আশা একজনকরে প্রার্থীকে জয়ী করার পর যে ভোট থাকবে তার সঙ্গে নিরদল ও ছোট দলগুলির সমর্থনে আরও এক প্রার্থীকে জয়ী করতে পারবে তারা। অন্যদিকে বিজেপিরও আশা অতিরিক্ত ভোট ও নিরদলের সমর্থন। তবে শিবসেনার নবাব মালিক এবং অনিল দেশমুখ দুই প্রাক্তন মন্ত্রী জামিন না পাওয়ায় তারা ভোট দিতে পারবেন না।

অন্যদিকে রাজস্থানে রাজস্থানে ৪ আসনে ৩ টি প্রার্থী দিয়েছে কংগ্রেস। বিজেপির ১ প্রার্থী। এবং নির্দল হিসেবে লড়া মিডিয়া ব্যারন সুভাষ চন্দ্রকে সমর্থন করছে বিজেপি। এখানে কংগ্রেসের ২ আসনে জয় কার্যত নিশ্চিত, বিজেপির একটি আসনে। আর একটি আসনে কঠিন লড়াই হতে চলেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। পাশাপাশি এখানে বিজেপির বিরুদ্ধে ঘোড়া কেনাবেচার অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস। যার জেরে ইতিমধ্যেই সেখানে বিধায়কদের হোটেলবন্দি করা হয়েছে। একিভাবে হরিয়ানাতেও বিধায়কদের হোটেলবন্দি করেছে কংগ্রেস। এখানে ২ আসনে একটি করে আসনে জয় নিশ্চিত কংগ্রেস ও বিজেপির। তবে এখানে আবার বিজেপি নির্দল প্রার্থী কার্তিকেয়া শর্মাকে সমর্থন করছে। কংগ্রেসের আশঙ্কা নির্দল প্রার্থীকে জেতাতে তাঁদের বিধায়কদের ভাঙিয়ে নিয়ে যেতে পারে বিজেপি।

কর্ণাটক রাজ্যে আবার ৪ আসনে প্রার্থী সঙ্খ্যা ৬ জন। চার আসনের মধ্যে দুটি বিজেপির এবং একটি কংগ্রেসের জেতার কথা। অন্য একটি আসনে লড়াইয়ে বিজেপি ও জেডিএস। এই চতুর্থ আসনে জয় পেতে বিজেপি মোট ৩ জন প্রার্থী দিয়েছে কর্ণাটকে। কংগ্রেসেরও নজর এই আসনে ফলে তারা দিয়েছে ২ প্রার্থী। জেডিএসও একজন প্রার্থী দিয়েছে। ফলে এই আসনে হতে চলেছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। তবে এই আসনে কংগ্রেস যদি জেডিএসকে সমর্থন করত সেক্ষেত্রে সহজ জয় হতো জেডিএসের। তবে আপাতত এখানে কঠিন লড়াই।


Previous articleপড়াশুনোর সময় নেটমাধ্যম থেকে দূরে থাকুন,পরামর্শ দ্বিতীয় হওয়া সায়নদীপের