বুলডোজার নীতি প্রয়োগ বন্ধে কেন্দ্রকে চিঠি রাষ্ট্রসংঘের দূতের

এই বিষয়টি নিয়ে দেশের মধ্যে যেমন ক্ষোভ তৈরি হয়েছে সমালোচনা হয়েছে, তেমনি এর বিরোধিতা করেছে রাষ্ট্রসংঘ। আরও একধাপ এগিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘের তিনজন বিশেষ দূত এই বুলডোজার নীতির বিরোধিতা করে প্রতিবাদ জানিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি দিয়েছেন

উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকার যে পথে হেঁটেছেন ‘বুলডোজার নীতি’ নিয়ে, এখন অন্য রাজ্যের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীরাও অনুসরণ করছেন। কী সেই ‘বুলডোজার নীতি’ ? যে দুর্বৃত্তরা শান্তি নষ্ট করার চেষ্টা করছে, কোনও আইনের তোয়াক্কা না করে প্রশাসন তাদের ঘরবাড়ি ভেঙে ফেলছে বুলডোজার দিয়ে। এই বিষয়টি নিয়ে দেশের মধ্যে যেমন ক্ষোভ তৈরি হয়েছে সমালোচনা হয়েছে, তেমনি এর বিরোধিতা করেছে রাষ্ট্রসংঘ।

আরও একধাপ এগিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘের তিনজন বিশেষ দূত এই বুলডোজার নীতির বিরোধিতা করে প্রতিবাদ জানিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি দিয়েছেন। জানা গিয়েছে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষ দূত চিঠি লেখেন ৯ জুন। তার ঠিক তিনদিন পর প্রয়াগরাজ সহিংসতা মাস্টারমাইন্ড জাভেদ আহমেদের বাড়ি বুলডোজার দিয়ে ভেঙে দেয়। বিরোধীরাও এর বিরোধিতা করে।যদিও প্রশাসনের সাফাই, বুলডোজার অভিযানের আগে নোটিশ দিয়ে জানানো হয়েছিল।

আরও পড়ুন- ভারতের ভাবমূর্তি ধাক্কা খেয়েছে নূপুর শর্মার মন্তব্যে, ক্ষুব্ধ ডোভাল

বিশেষ দূতের কার্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ৯ জুন এর চিঠির জবাব দেওয়ার জন্য ভারতের কাছে ৬০ দিন সময় রয়েছে। ভারত সাড়া দিলে প্রতিক্রিয়া এবং বিশেষ দূতের চিঠি দুটোই একই সঙ্গে প্রকাশ করা হবে।এক সাক্ষাৎকারে  ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির আরবান স্টাডিজ অ্যান্ড প্ল্যানিং বিভাগের আইন ও উন্নয়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বালাকৃষ্ণান রাজাগোপাল জানিয়েছেন,তিনি আশা করছেন ভারত সরকার এবং তার স্বাধীন বিচার বিভাগ জনসাধারণের বিবৃতিতে বা তাদের বিচার্য সিদ্ধান্তের মাধ্যমে স্পষ্টভাবে বিষয়টি ঘোষণা  করবে যাতে নির্বিচারে যে কোনও আবাসন ধ্বংস অবিলম্বে বন্ধ করা হয়।

Previous articleআজ সোনা রুপোর দাম কত? জেনে নিন এক ঝলকে