Arpita Mukherjee: অর্পিতার ‘কুবেরের ধন’ উদ্ধারে ৪০ টি ট্রাঙ্ক পাঠাল আরবিআই!

এসএসসি (SSC) দুর্নীতি মামলায় অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের (Arpita Mukherjee) বাড়িতে টাকার পাহাড়। যা দেখে চক্ষু চড়কগাছ ইডি আধিকারিকদেরও। পার্থ ‘ঘনিষ্ঠ’ অর্পিতার টালিগঞ্জের ফ্ল্যাট থেকে ২১ কোটি ২০ লক্ষ টাকার হদিশ পেয়েছেন তদন্তকারীরা। শুধু টাকা উদ্ধারই নয়, এই বিপুল টাকা গুণতে আনা হয়েছিল সাত-সাতটা টাকা গোনার মেশিন। সময় লেগেছে ১৭ ঘণ্টা। পাশাপাশি ৫৪ লক্ষ টাকার বিদেশী মুদ্রা বাজেয়াপ্ত করেছেন ইডির আধিকারিকরা। ৭৯ লক্ষের গয়নাও উদ্ধার হয়েছে ফ্ল্যাট থেকে। এরপরই মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়ায় কীভাবে নিয়ে যাওয়া হবে এই বিপুল টাকা। এরপরই উদ্ধার হওয়া ২১ কোটি টাকা নিয়ে যেতে ৪০ টি ট্রাঙ্ক পাঠায় আরবিআই। ৫০০ টাকা, ২০০০ টাকা ও সোনার গয়না বোঝাই করা হয়েছে সেসব ট্রাঙ্কে।

এর পাশাপাশি হদিশ মিলেছে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের মোট তিনটি পার্লারের। তারমধ্যে একটি বরাহনগরের টবিন রোডে। এখানে মাঝে মাঝে আসতেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। এছাড়াও তাঁর আরও দুটো এই ধরনের পার্লার আছে।

উত্তর চব্বিশ পরগণার বেলঘরিয়ায় অর্পিতার পৈতৃক বাড়ি রয়েছে অর্পিতার। বেলঘরিয়ার রথতলা এলাকায় একটি অভিজাত আবাসনে দু’ টি বিলাসবহুল ফ্ল্যাটও রয়েছে অর্পিতার। যার মধ্যে একটি ফ্ল্যাট ১৭০০ বর্গফুট মাপের, অন্যটির আয়তন ১৫০০ বর্গফুটের কাছাকাছি। ওই আবাসনের ফ্ল্যাট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক অঙ্কিত চিরোরিয়ার অবশ্য দাবি, দীর্ঘদিন ধরেই আবাসনের রক্ষণাবেক্ষণ বাবদ ফ্ল্যাট মালিকদের থেকে যে টাকা নেওয়া হয়, তা মেটাচ্ছেন না অর্পিতা। জমতে জমতে বকেয়ার পরিমাণ ২০ হাজার টাকায় পৌঁছেছে৷ এর মধ্যে একটি ফ্ল্যাটের জন্য বকেয়া ১১ হাজার টাকা, অন্যটির রক্ষণাবেক্ষণের খরচ বাবদ বাকি রয়েছে ৯ হাজার টাকা। এখন প্রশ্ন উঠছে, যেখানে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধার করেছেন ইডির অফিসাররা, সেখানে ফ্ল্যাটের রক্ষণাবেক্ষণ বাবদ মাত্র ২০ হাজার টাকা কেন এতদিন ধরে বকেয়া রেখেছিলেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়?

এদিকে মেয়ে গ্রেফতার হওয়ার পর অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের মা জানিয়েছেন ‘সপ্তাহে একদিন অবশ্যই আসতো। বাইরে বাইরেই কাজ কর্ম করেছে। ও সিরিয়াল করেছে, সিনেমা করেছে, প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে ছিল। ও ব্যবসা করেছে। ওঁর বাবা ভালো চাকরি করত। সেই সেন্ট্রাল গভর্নমেন্টের চাকরিটা নিল না।” মেয়ের সঙ্গে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথা জানতেন তিনি। এর বাইরে মেয়ের কাজকর্ম বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না।

আরও পড়ুন- ইডি হেফাজতে থেকেই SSKM-এ আইসিইউ-তে ভর্তি হলেন পার্থ

Previous articleবিদ্যাসাগরের শেষ জীবনের অজানা কাহিনী নিয়ে প্রকাশিত হল দেবারতি মুখোপাধ্যায়ের উপন্যাস