একই দেহে এইচআইভি- ক্যানসার! মারণ রোগ থেকে বেঁচে উঠলেন ৬৬ বছরের প্রৌঢ়

সিটি অফ হোপ জানিয়েছে, রোগী তাঁর স্টেম সেল প্রতিস্থাপনের আগে কেমোথেরাপি-ভিত্তিক, কম-তীব্রতার ট্রান্সপ্লান্ট চিকিৎসা পেয়েছিলেন। এর ফলে বয়স্ক রোগীদের প্রতিস্থাপন সম্পর্কিত জটিলতার সম্ভাবনা কমে।

দুটো আলাদা রোগ, কিন্তু সেরে উঠল এক চিকিৎসায়। ১৯৮৮ সালে এইডস (AIDS) আক্রান্ত হয়েছিলেন এক ব্যক্তি, শুরু হয়েছিল চিকিৎসা। তার প্রায় ৩১ বছর পরে ২০১৯ সালে ক্যানসারে (Cancer)আক্রান্ত হন তিনি। এবার এক চিকিৎসায় সেরে উঠলেন দুই মারণ রোগ থেকে। আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ার ৬৬ বছরের এক প্রৌঢ়, বিশ্বের চতুর্থ ব্যক্তি হিসেবে এইচআইভি ভাইরাস থেকে মুক্তি পেলেন তিনি। আপাতত তাঁর দেহে ক্যানসারেরও কোনও লক্ষণ নেই বলে জানিয়েছেন তাঁর চিকিৎসকরা। গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার কানাডার মন্ট্রিয়লে আন্তর্জাতিক এডস সম্মেলনে (International AIDS Conference in Montreal, Canada) এই খবর জানান হয়েছে।

কিন্তু কীভাবে হল অসাধ্য সাধন?

আমেরিকার অন্যতম ক্যানসার গবেষণা এবং চিকিৎসা সংস্থা সিটি অফ হোপ-এ (City of Hope)৬৬ বছরের এক প্রৌঢ় চিকিৎসা করাচ্ছিলেন। বিরল জেনেটিক মিউটেশন (genetic mutation) সম্পন্ন এক ডোনারের কাছ থেকে স্টেম সেল (Stem Cell) পাওয়া যায়। এরপর প্রায় ১ বছরেরও বেশি সময় ধরে অ্যান্টিরেট্রোভাইরাল থেরাপি (ART)এইচআইভি থেকে সেরে ওঠেন ঐ প্রৌঢ় । ডাক্তার বলছেন তাঁরা বোন ম্যারো প্রতিস্থাপন (Bone marrow transplant)করার সিদ্ধান্ত নেন। সিটি অফ হোপ জানিয়েছে, রোগী তাঁর স্টেম সেল প্রতিস্থাপনের আগে কেমোথেরাপি-ভিত্তিক, কম-তীব্রতার ট্রান্সপ্লান্ট চিকিৎসা (Transplant Treatment)পেয়েছিলেন। এর ফলে বয়স্ক রোগীদের প্রতিস্থাপন সম্পর্কিত জটিলতার সম্ভাবনা কমে। চিকিৎসকদের এই সাফল্য লক্ষ লক্ষ ক্যানসার ও এইচআইভি রোগী ও তাঁদের পরিবারের মনে আশার সঞ্চার করেছে।


Previous articleকলকাতায় ১০ কোটি টাকার হেরোইন উদ্ধার