এসএসসি দুর্নীতির বিরুদ্ধে শহরে প্রতিবাদ মিছিল নাগরিক সমাজের

এসএসসি দুর্নীতির(SSC Scam) বিরুদ্ধে আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থীদের সমর্থনে সোমবার শহরে(Kolkata) মিছিল করল নাগরিক সমাজ। এদিন বিকেল ৩ টে নাগাদ ধর্মতলার ভিক্টোরিয়া হাউস থেকে গান্ধীমূর্তির পাদদেশ পর্যন্ত হয় এই মিছিল। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য, বিমান বসু, সুর্যকান্ত মিশ্র। পাশাপাশি ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার, বিশিষ্ট চিত্র পরিচালক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়, নাট্যকর্মী সীমা মুখোপাধ্যায়, আইনজীবী সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায়, প্রাক্তন উপাচার্য শুভঙ্কর চক্রবর্তী, বিশিষ্ট অভিনেতা বিমল চক্রবর্তী, চন্দন সেন সহ অন্যান্য বিশিষ্টজনেরা।

সোমবার মিছিলে পা মিলিয়ে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বাম নেতা বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, “পশ্চিমবঙ্গের যে সুনাম ছিল তা বর্তমান পরিস্থিতিতে ক্ষুণ্ণ হয়েছে। চাকরিক্ষেত্র থেকে নিয়োগ – বিভিন্ন ক্ষেত্রেই যে দুর্নীতির অভিযোগ সামনে আসছে তাতে পশ্চিমবঙ্গের সুনাম নষ্ট হচ্ছে। আমাদের স্পষ্ট দাবি, রাজ্যসরকারের মদতে সংগঠিত এই দুর্নীতি। দুর্নীতিতে যারা যারা জড়িত তাদের সকলকে গ্রেফতার করতে হবে। যারা দুর্নীতির মাধ্যমে চাকরি পেয়েছেন তাদের চাকরি থেকে তাড়াতে হবে।” পাশাপাশি এদিন নতুন ৭ টি জেলা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সে প্রসঙ্গে বিকাশবাবু বলেন, এই সব জেলায় আগে পুরোনো যে মুখগুলো ছিল তাদের প্রতি মানুষের বিশ্বাস নষ্ট হয়েছে তাই নতুন করে চুরি করার জন্য নয়া বাহিনি নামানো হচ্ছে।”

যদিও সিপিএম নেতা বিকাশরঞ্জনের বক্তব্যের পাল্টা তোপ দেগে এদিন কুণাল ঘোষ বলেন, “সিপিএম নিজের আত্মসমালোচনা করুক। তৃণমূল ব্যবস্থা নিতে জানে। ওনাদের সময়ে কী হয়েছিল তা ভুলে গেলে চলবে না। মনে রাখতে হবে চোরেদের মন্ত্রিসভায় থাকব না বলে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য ইস্তফা দিয়েছিলেন। যদি কোনও দুর্নীতি হয়ে থাকে তবে রাজ্যরকার তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে।” প্রসঙ্গত, সপ্তাহের প্রথম দিনে ব্যস্ত সময়ে এই নাগরিক মিছিলের জেরে ব্যাপক যানজট তৈরি হয় রাস্তায়।


Previous articleপঞ্চায়েত ভোটে দাদাগিরি-নেতাগিরি চলবে না, চাই স্বচ্ছভাবমূর্তি, জনসংযোগ: কড়া বার্তা অভিষেকের