লালবাতির ব্যবহারে আইন ভাঙলে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে রাজ্য, অনুব্রত মামলায় জিজ্ঞাসা হাইকোর্টের

রাজ্যের আইনজীবী অর্নিবাণ রায় জানান, অনুব্রত গাড়ি থেকে ইতিমধ্যেই লালবাতি খুলে দিয়েছেন৷

লালবাতির ব্যবহার নিয়ে আইন ভাঙলে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে রাজ্য,জানতে চাইল হাইকোর্ট। মাত্র ৫০০ টাকা জরিমানা করলেই কি অপরাধ করে পার পাওয়া যায় ? লালবাতির ব্যবহার নিয়ে জনস্বার্থ মামলার প্রেক্ষিতে সোমবার কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ এই প্রশ্ন তোলে৷
বীরভূমের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলের গাড়িতে লালবাতির ব্যবহার নিয়ে জনস্বার্থ মামলা করেন আইনজীবী তরুণজ্যোতি তিওয়ারি৷ এদিন তিনি বলেন, ‘রাজ্যের রিপোর্টে কারা লালবাতি ব্যবহার করতে পারে তা কিছুই পরিষ্কার করে লেখা নেই৷’ এদিন রাজ্যের আইনজীবী অর্নিবাণ রায় জানান, অনুব্রত গাড়ি থেকে ইতিমধ্যেই লালবাতি খুলে দিয়েছেন৷

আরও পড়ুন- নিজের ও পরিবারের আত্মরক্ষার্থে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অনুমতি পেলেন সলমন
গরু পাচার মামলায় সম্প্রতি অনুব্রত মণ্ডলকে তলব করেছিল সিবিআই৷ যেদিন তাঁকে ডাকা হয়, সেদিনই এসএসকেএমে ভর্তি হন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি৷ হাসপাতালে যে গাড়ি থেকে তিনি নেমেছিলেন সেই গাড়ির মাথায় লাগানো ছিল লালবাতি৷সরকারি পদাধিকারী না হয়েও অনুব্রতর গাড়িতে লালবাতি লাগানো নিয়ে অনেকেই আপত্তি তোলেন৷ পরে হাইকোর্টে দায়ের হয় মামলা৷
মামলাকারী তরুণজ্যোতি তিওয়ারি বলেন, অনুব্রত মণ্ডল লালবাতি লাগানো গাড়িতে এসএসকেএম হাসপাতালে এসেছিলেন৷ অনুব্রতর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হওয়া উচিত বলে দাবি করেন তিনি৷এরপরই বিচারপতি বেশ কিছু প্রশ্ন উথ্থাপন করেন। তিনি জানতে চান, লালবাতি গাড়ি ব্যবহার করা নিয়ে রাজ্যের কী আইন রয়েছে? জেলা সভাপতি কি লালবাতি গাড়ি ব্যবহার করতে পারেন?

 

 

Previous articleপাঠার মাংস খেতে চাইছেন পার্থ! ২পিস চিকেনে “আবদার” মেটালো ইডি