ঝাড়খণ্ড কাণ্ডে এবার সিআইডির নজরে এক আইনজীবী, রাঁচিতে বিপুল সম্পত্তির খোঁজ

ঝাড়খণ্ডের কংগ্রেস বিধায়কদের (Congress MLA) থেকে টাকা উদ্ধারের ঘটনায় এবার নয়া মোড়। এবার রাঁচির এক আইনজীবীর (Lawyer) বাড়িতে তল্লাশি (Search Operation) চালিয়ে বিপুল সম্পত্তির হদিশ পেলো রাজ্যের গোয়েন্দা দফতর সিআইডি (CID)। গত রবিবার কলকাতার একটি শপিং মল থেকে রাজীব কুমার নামে ওই আইনজীবীকে গ্রেফতার করেন সিআইডি আধিকারিকরা। আইনজীবীর থেকে ইতিমধ্যেই ৫০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করেছে রাজ্য গোয়েন্দা দফতর। এরপর হেয়ার স্ট্রিট থানার পুলিশ ও লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগের গুন্ডা দমন শাখার আধিকারিকরা আইনজীবীকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করতেই একাধিক চাঞ্চল্যকর বিষয় সামনে আসে। সেই সূত্র ধরেই শুক্রবার সকালে রাঁচিতে আইনজীবীর বাড়িতে হানা দেন সিআইডি আধিকারিকরা।

এদিন তল্লাশি চালিয়ে আইনজীবীর বাড়ি থেকে একটি কালো ডায়েরি উদ্ধার হয়েছে। পাশাপাশি গোয়েন্দা বিভাগের হাতে এসেছে একাধিক নথি এবং ডিজিটাল লেনদেনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। শুধু তাই নয়, এদিন আইনজীবীর বিপুল সম্পত্তিরও হদিশ পাওয়া গিয়েছে। অভিযুক্ত আইনজীবীর ১৬টি ফ্ল্যাট, একটি ৩ তলা বাড়ি, নয়ডায় ফ্ল্যাট ও অফিসের সন্ধান মিলেছে। এছাড়া সম্প্রতি রাঁচি থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে ৭ একর জমি কিনেছেন তিনি। আইনজীবীর এই বিপুল সম্পত্তি দেখে ধন্দে পড়েছে গোয়েন্দা বিভাগ। ঝাড়খণ্ডের সরকার ভাঙার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে তিনি কীভাবে যুক্ত, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, প্রতারণার অভিযোগে ঝাড়খণ্ডের একাধিক থানায় অভিযুক্ত আইনজীবীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। একাধিক ব্যক্তির থেকে কয়েক লক্ষ টাকা হাতানোর অভিযোগ উঠেছে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। এরপরই মামলা দায়েরের ভিত্তিতে ঝাড়খণ্ড পুলিশ খোঁজ শুরু করলে অভিযুক্ত আইনজীবী কলকাতায় পালিয়ে আসেন বলে অভিযোগ। কলকাতায় এসেই গা ঢাকা দিয়েছিলেন তিনি। তবে রবিবার গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সিআইডির আধিকারিকরা তাঁকে গ্রেফতার করেন।

 

 

 

 

Previous articleকলেজ সার্ভিস কমিশনে  দুর্নীতির অভিযোগে অবস্থান-বিক্ষোভে সামিল চাকরিপ্রার্থীরা