পুজোতে জেলেই থাকতে হবে পার্থ-কল্যাণময়-সহ চারজনকে

পুজোতে জেলেই থাকতেই হবে পার্থ চট্টোপাধ্যায়-কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়কে। জেরায় সহযোগিতা করছেন না। এই অজুহাতে প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) ও এসএসসি-র প্রাক্তন চেয়ারম্যান কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ের (Kalyan Gangopadhyay) জামিনের আবেদনের বিরোধিতা করেন সিবিআইয়ের আইনজীবী। আলিপুর বিশেষ CBI আদালতে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত তাঁদের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়। একই সঙ্গে শিক্ষক নিযোগ দুর্নীতি মামলায় ধৃত অপর দুজন শান্তিপ্রসাদ সিনহা, অশোক সাহারও জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার মামলার শুনানিতে সিবিআইয়ের আইনজীবী পার্থের জেল হেফাজতের আবেদন করেন। তাঁর অভিযোগ, পার্থ তদন্তে সহযোগিতা করছেন না। আপাতত পার্থকে জেল হেফাজতেই পাঠানোর পক্ষে সওয়াল করেন তিনি। প্রয়োজনে সেখানে গিয়েই পার্থকে জেরা করবেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিক।

পার্থের আইনজীবী বলেন, তাঁর মক্কেলের বিরুদ্ধে প্রিভেনশন অফ করাপশন অ্যাক্টের ধারা দেওয়া হয়েছে। ‘‘মুড়ি-মিছরির মতো সবাইকে একই সেকশন দেওয়া হচ্ছে। সিবিআই পুলিশ হেফাজত না চেয়ে জেল হেফাজত চাইছে, এর অর্থ, ওঁরা আর আমার মক্কেলকে হেফাজতে চাইছেন না।’’ তাঁর দাবি, পার্থ দেশ ছেড়ে যাবেন না। তাই শারীরিক অবস্থা বিচার করে তাঁকে বাড়িতে রাখা হোক। দু’পক্ষের সওয়াল-জবাব শোনার পর রায় স্থগিত রাখা হয়। পরে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত পার্থকে জেল হেফাজতের পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

একইভাবে কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়, এসপি সিনহা এবং অশোক সাহারও ১৪দিনের জেল হেফাজত। কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ের আইনজীবীও জামিনের আবেদন জানান। বলেন, তাঁর মক্কেল মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি ছিলেন। এসএসসি-র কেউ নন। তাঁর সই স্ক্যান করা হয়েছে বলে বলেও অভিযোগ করেন কল্যাণময়ের আইনজীবী। তিনি কোনও বৈঠকে ছিলেন না বলে দাবি করে জামিন চাওয়া হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কল্যাণময়, এসপি সিনহা ও অশোককেও ৫ অক্টোবর পর্যন্ত জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত।

আরও পড়ুন- প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে রিপোর্ট পেশ সিবিআই-এর


 

Previous articleপ্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে রিপোর্ট পেশ সিবিআই-এর