প্রায় ১০০০ বছরের ঐতিহ্যবাহী কালীপুজোর প্রস্তুতি গোঘাটের আগাই গ্রামে

আরামবাগ মহকুমার প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী কালীপুজোগুলির মধ্যে অন্যতম হলো গোঘাটের আগাই গ্রামের গোস্বামী পরিবারের কালীপুজো (Kali Pujo)। এই আগাই গ্রামের গোস্বামী পরিবারের বর্তমান সদস্যদের দাবি, প্রায় এক হাজার বছর আগে থেকে বংশপরম্পরা ধরে প্রাচীন প্রথা মেনেই একই রীতিনীতিতে কালীপুজো হয়েছে আসছে পরিবারে।

পারিবারিক পুজো হলেও গ্রামের বাসিন্দাদের কাছে এখন এটি উৎসবে পরিণত হয়েছে। কালীপুজো শুধু আগাই গ্রাম নয়, পার্শ্ববর্তী আরও বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও বহু দূর-দূরান্ত থেকে ভক্তরা আসেন। গোস্বামী পরিবারের সদস্য উৎপলকান্তি গোস্বামী (Upalkanti Goswami) জানান, তৎকালীন বর্ধমানের কোনও এক রাজা তাঁর বংশধরকে দিয়ে গোঘাটের এই আগাই গ্রামে চারটি গড় কেটে প্রতিষ্ঠা করে এই পুজোর সূচনা করেন। সেই সময়ে আগাই গ্রাম ছিল জঙ্গলে ঘেরা পায়ে হাঁটা পথ। গ্রামের জনসংখ্যাও ছিল খুবই কম। সন্ধের পর গ্রামে রাস্তা দিয়ে মানুষ যাতায়াত করত না- এমনই ভয় ছিল ডাকাতের। জানা যায়, সেই সময় বাড়ির কাছে একটি পুকুরের পাড়ে বিশাল এক নিম গাছের তলাতেই কালীপুজো শুরু করেন ওই রাজা।

রাজার নির্দেশে, গোঁসাই পরিবারের বংশধরদের এই পুজোর দায়িত্ব দিয়েছিলেন। তাই তখন থেকেই গোস্বামী পরিবারের বংশধরেরা পুজো করে আসছেন। বর্তমানে এই মন্দিরে কালীপুজো ঘিরে তিনদিন ধরে চলে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বসে মেলা। বর্তমানে গোঁসাই পরিবারের পুজো এখন সর্বজনীন।

আরও পড়ুন- গেরুয়া রাজনীতিতে আরও সক্রিয় মিঠুন! এবার রাজ্য কোর কমিটিতে অভিনেতা

Previous articleবিয়ের গান রিলিজ করে মুখে কুলুপ প্রসেনজিতের, পাশে সলাজ হাসি নায়িকার