ফের বিস্ফো*রক রোনাল্ডো, বললেন, ‘আমাকে নিয়ে বাইরের লোকজন কী ভাবল, সেটা নিয়ে আমার কিছু যায় আসে না’

এখানেই না থেমে রোনাল্ডো আরও বলেন," আমরা সবাই বিশ্বকাপ হাতে তোলার স্বপ্ন নিয়েই কাতারে এসেছি। সবাই প্রচন্ড ফোকাসড।

২৪ নভেম্বর বিশ্বকাপের অভিযান শুরু করতে চলেছে পর্তুগাল। প্রতিপক্ষ ঘানা। মুখে না বললেও কেরিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ খেলতে চলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তাই এই বিশ্বকাপে সফল করতে মরিয়া সিআরসেভেন। তবে খেলায় ফোকাসড করতে চাইলেও, বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না রোনাল্ডোর। ম‍্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড ক্লাব ও দলের হেড কোচ এরিক টেন হ্যাগের বিরুদ্ধে তাঁর সেই বিস্ফোরক সাক্ষাৎকার সম্প্রচার হতেই বিতর্কের বেড়েই চলেছে। আর এবার এই নিয়ে আরও একবার মুখ খুললেন সিআরসেভেন। বললেন,” আমাকে নিয়ে বাইরের লোকজন কী ভাবল, সেটা নিয়ে আমার কিছু যায় আসে না। আমার যখন মনে হবে তখন কথা বলব।

সোমবার সাংবাদিক সম্মেলনে রোনাল্ডো এসে বলেন,” আমার জীবনে টাইমিং হল শেষ কথা। আমার পছন্দের টাইমিং হল সেরা টাইমিং। আমাকে নিয়ে বাইরের লোকজন কী ভাবল, সেটা নিয়ে আমার কিচ্ছু যায় আসে না। আমার যখন মনে হবে তখন কথা বলব। ক্লাব থেকে জাতীয় দল, সব জায়গার সতীর্থরা আমাকে খুব ভালোভাবে চেনে। এবং জানে।”

এখানেই না থেমে রোনাল্ডো আরও বলেন,” আমরা সবাই বিশ্বকাপ হাতে তোলার স্বপ্ন নিয়েই কাতারে এসেছি। সবাই প্রচন্ড ফোকাসড। তাই আমার ধারণা একটি সাক্ষাৎকারের জন্য আমাদের দলে কোনও প্রভাব পড়বে না। আমিও আগের থেকে অনেকটা সুস্থ। দাপিয়ে দলের সঙ্গে অনুশীলন করছি। বিশ্বকাপ জয় অবশ্যই আমাদের স্বপ্ন। তবে আমরা এই মুহূর্তে ঘানার বিরুদ্ধে জয় নিয়েই ভাবছি।”

এদিকে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো প্রশংসায় দলের সতীর্থ রুবেন নাভেস। তিনি বলেন, সিআর সেভেন দারুণ ছন্দে রয়েছেন। ক্রিশ্চিয়ানো যেভাবে ট্রেনিং করছে তাতে একটা বিষয় পরিষ্কার, এই মুহূর্তে ও দারুণ ছন্দে রয়েছে।’’

পর্তুগিজ মিডফিল্ডার আরও জানাচ্ছেন, রোনাল্ডোর বিস্ফোরক সাক্ষাৎকারের প্রভাব পর্তুগালের ড্রেসিংরুমে বিন্দুমাত্র পড়েনি। রুবেনের বক্তব্য, ‘‘এমনটা নয় যে এই বিষয়ে আমাদের মধ্যে কোনও আলোচনা হচ্ছে না। তবে এর কোনও নেতিবাচক প্রভাব দলে পড়েনি। আমরা সবাই একটা নির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে কাতারে এসেছি। সেটা হল বিশ্বকাপ জেতা।’’

রোনাল্ডো জাতীয় শিবিরে রীতিমতো ফুরফুরে মেজাজে। বিশ্বকাপে যে তিনি নিজের সেরাটা দিতে মরিয়া, সেটা পর্তুগিজ মহাতারকার শরীরী ভাষাতেই স্পষ্ট। সুযোগ পেলেই সতীর্থদের সঙ্গে যেমন হাসিঠাট্টা করছেন, তেমন নিবিড় অনুশীলনে নিজেকে ডুবিয়ে রাখছেন।

আরও পড়ুন:‘আমাদের বিয়ার চাই, বিয়ার দাও,’ বিশ্বকাপের প্রথম ম‍্যাচে বিয়ারের দাবিতে স্লোগান তুলল ইকুয়েডর সমর্থকরা

 

Previous articleপ্রাথমিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থার মানোন্নয়নে রাজ্যজুড়ে হবে সুস্বাস্থ্যকেন্দ্র: ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর