“নেতা মিঠুন বাংলার কলঙ্ক”: মহাগুরুর পুরুলিয়া সফরকে ‘সার্কাস’ কটাক্ষ কুণালের

কুণালের অভিযোগ, সারদা কাণ্ডে যতদিন রাজ্য সরকারের রাজীব কুমারের সিট ছিল, শ্যামল সেনের কমিশন তখন টাকা ফেরত দেননি মিঠুন। আর সিট যেদিন ইডি-সিবিআইয়ের হাতে গিয়ে পৌঁছল তখন টাকা ফেরত দেওয়ার নাটক করে বিজেপির দ্বারস্থ হল অভিনেতা। আগে এসব প্রশ্নের উত্তর দিক তারপর আমি এই বিষয়ে আলোচনা করব।

বিজেপি নেতা তথা অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর (Mithun Chakravorty) পুরুলিয়ার (Purulia) সভাকে কটাক্ষ করলেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তথা দলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh)। এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে কুণাল মন্তব্য করেন শীতকালের দিকে যেমন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে রাজনৈতিক সভা হয়, ঠিক তেমনই শীতকালেই গানের অনুষ্ঠান, যাত্রাপালা, সার্কাসও হয়। পাশাপাশি ভালো শিল্পীদের বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠান করতে নিয়ে যাওয়া হয় এবং মানুষও পয়সা দিয়ে সেই সমস্ত অনুষ্ঠান দেখতে আসেন। কিন্তু পরে ফিরে এসে তৃণমূলকে (TMC) ভোট দেন মানুষ।

উল্লেখ্য, এদিন পুরুলিয়া থেকে মিঠুন অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যকে যে টাকা দিচ্ছে তাঁর হিসেব না দিতে পারার কারণেই টাকা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাজ্য যদি ঠিকমতো হিসেব দেয় তাহলে কেন্দ্রও ঠিকমতো রাজ্যকে টাকা দেবে। এই প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা কুণালকে প্রশ্ন করলে তিনি পাল্টা অভিযোগ করেন, সারদা কাণ্ডে যতদিন রাজ্য সরকারের রাজীব কুমারের সিট ছিল, শ্যামল সেনের কমিশন তখন টাকা ফেরত দেননি মিঠুন। আর সিট যেদিন ইডি-সিবিআইয়ের (ED-CBI) হাতে গিয়ে পৌঁছল তখন টাকা ফেরত দেওয়ার নাটক করে বিজেপির দ্বারস্থ হল অভিনেতা। আগে এসব প্রশ্নের উত্তর দিক তারপর আমি এই বিষয়ে আলোচনা করব।

এরপর কুণাল বলেন, অভিনেতা মিঠুন বাংলার গর্ব, নেতা মিঠুন বাংলার কলঙ্ক। পাশাপাশি এদিন মিঠুন চক্রবর্তী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বেইমানি করে ভাইবোনের সম্পর্ককে কলঙ্কিত করেছে বলে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক।

Previous article“বিমানদা কেমন আছেন?” মুখ্যমন্ত্রীর রাজনৈতিক সৌজন্য বজায় রাজ্যপালের শপথেও