পরিযায়ীদের বাসের তালিকায় অটো, বাইক, স্কুটার! মুখ পুড়ল প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর

বাস রাজনীতি নিয়ে সরগরম উত্তরপ্রদেশের রাজনীতি।Auto, bike, scooter in the bus list of migrants! Priyanka Gandhi’s face burned বড় মুখ করে বাসের তালিকা পাঠিয়ে রাজনৈতিক ফয়দা তুলতে গিয়ে মুখ পুড়ল প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর। যোগী আদিত্যনাথ সরকারের দাবি, ওই তালিকায় বাস তো আছে। কিন্তু অধিকাংশই অটো, স্কুটার এমনকী বাইকও।

কী হয়েছিল? হরিয়ানায় আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুরে আটকে যায়। কার্যত রাস্তায় আটকে থাকা শ্রমিকদের জন্য যোগী সরকার কিছুই করছে অভিযোগ তুলে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেন, যোগী সরকার যদি শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে না পারে, তাহলে কংগ্রেস ১০০০ বাসের ব্যবস্থা করবে। কিন্তু প্রিয়াঙ্কার কথায় সাড়া না দেওয়ায় সুর চড়িয়ে প্রিয়াঙ্কা বলেন, নিজেরা ব্যবস্থা করতে পারে না, আবার কেউ সাহায্য করলে নিতে জানে না। এবার পাল্টা যোগী সরকার প্রিয়াঙ্কার প্রস্তাব মেনে নিয়ে বলে কোথাও বাসগুলি পাঠানো হবে তা জানানো হোক। তাঁর আধিকারিকরা নিজেরা গিয়ে সেই বাস আনার ব্যবস্থা করবেন। দিল্লি-উত্তরপ্রদেশ সীমান্তে দুটি জায়গা স্থির হয়। যোগীর আধিকারিকদের হাতে আসে কংগ্রেসের পাঠানো তালিকা। আর সেই তালিকা উত্তরপ্রদেশের ভেহিকেল অ্যাপে ফেলতেই অভিযোগ, বেরিয়ে আসে বাসের জায়গায় বাইক, স্কুটার অটোর নম্বর! বিজেপি সুযোগ বুঝে কংগ্রেসের দিকে বন্দুক তাক করে বলে টুজি-থ্রিজি কেলেঙ্কারির পর বাস কেলেঙ্কারি। পাল্টা কংগ্রেসের অভিযোগ, বাসের তালিকা নিয়ে যদি এত সংশয়, তাহলে যোগীর আধিকারিকরা এসে সশরীরে বাসগুলি দেখে যান। সস্তার রাজনীতি চলছে। কিন্তু রাজনৈতিক চাপান-উতোর চলছেই।

সেই চাপান-উতোরকে আরও এক কদম উস্কে দিয়ে বিতর্ক বাড়িয়ে গভীর রাতে ভুয়ো বাসের তালিকা দেওয়ার অপরাধে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অজয় লাল্লু আর প্রিয়াঙ্কার ব্যক্তিগত সচিবের বিরুদ্ধে এফআইআর করেছে। বাস রাজনীতি যে জমজমাট তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু ভুয়ো বাসের তালিকা দেওয়ার অভিযোগের পাল্টা জবাব কংগ্রেস কীভাবে দেয় সেটাই দেখার।