কোচবিহারে বন্যা পরিস্থিতি: উদ্ধারে প্রশাসন, পাশে তৃণমূল

শনিবার রাত বাড়তেই হু হু গতিতে জল বাড়ছে কোচবিহারের সমস্ত নদীতে। তোর্সা, মানসাই, রায়ডাক, গদাধর, কালিয়ানি, বুড়া রায়ডাক, ধরলা, সুতুঙ্গা, ঘরঘড়িয়া- নদীতে রাত বাড়তেই জল বাড়তে শুরু করেছে।কোচবিহারের 1 নম্বর ব্লক ও পুরসভা অঞ্চলের 16, 17, 15, 19 নম্বর ওয়ার্ডের একাধিক বাড়ি জলের নীচে।

ঘুঘুমারি এলাকা জলের নীচে থাকার কারণে বাসিন্দাদের উদ্ধার করে স্থানীয় একটি প্রাথমিক স্কুলে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে।
কোচবিহার জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য সব রকম প্রস্তুতি তাদের রয়েছে। জেলাশাসক পবন কাদিয়ান জানান, জল বাড়তেই জেলার প্রতিটি ব্লকে খবর পাঠানো হয়েছে। আধিকারিকরা সজাগ রয়েছেন।
একই সঙ্গে দুর্গতদের পাশে দাঁড়ান জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি তথা রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান পার্থপ্রতিম রায়। শনিবার রাতে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে ঘুঘুমারি এলাকার প্রায় তিরিশটি পরিবারকে উদ্ধার করে স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় দেন তিনি। ইতিমধ্যেই তাঁদের খাবার, পানীয়জল-সহ প্রাথমিক ওষধের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান পার্থপ্রতিম রায়। রাতে পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছে প্রশাসন।