উত্তুরে হাওয়ায় যেন ভেসে গেল মেঘ, রোদ ঝলমল পাহাড়-সমতলে পিকনিকের ধুম

বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকলেও আচমকাও উত্তুরে হাওয়া যেন সব মেঘ উড়িয়ে নিয়ে গিয়েছে। শনিবার, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মজয়ন্তীতে ঝলমলে হয়ে উঠেছে আকাশ। সকাল থেকেই রৌদ্রস্নান করছে দার্জিলিং থেকে আলিপুরুদুয়ার, বালুরঘাট থেকে কোচবিহার। সমতল এলাকায় তাপমাত্রার পারদ ২২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছেপিঠেই ঘোরাফেরা করছে। দার্জিলিঙে অবশ্য দিনের তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে ওঠেনি। সেই তুলনায় সিকিমের নাথুলা, ছাঙ্গু এলাকার তাপমাত্রা হিমাঙ্কের কাছাকাছি নেমেছে।

দুদিন আগেই মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছিল শিলিগুড়ি সহ গোটা উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকায়। পাহাড় ও সমতলে জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছিল। তার পরেও রবিবার অবধি মাঝেমধ্যে বৃষ্টি হতে পারে বলে আভাস দিয়েছিলেন আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা। সিকিমের কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গোপীনাথ রাহা জানান, “মেঘ আপাতত সরে গিয়েছে। সে জন্য রোদ ঝলমল হয়ে আবহাওয়া দেখা যাচ্ছে।” তিনি জানান, শনিবার সিকিমের কোথাও বৃষ্টি হয়নি।

রোদের দেখা মিললেও কনকনে কিন্তু বয়েই চলেছে। ফলে, শীতের কামড় কিন্তু কমেনি। তবে রোদ ঝলমল থাকায় শনিবার ছুটির দিনে জমিয়ে পিকনিক চলছে পাহাড় ও সমতলের নানা এলাকায়। তিস্তার ধারে কিংবা ডুয়ার্সের মূর্তির কিনারায় অতবা মালদার আদিনা, সর্বত্রই ছুটির মেজাজ। পিকনিকের আবহ। দার্জিলিঙেও চিড়িয়াখানা-সহ নানা জায়গায় পর্যটকদের ভিড়।

আরও পড়ুন-কুয়াশায় মোড়া কলকাতা, জাঁকিয়ে শীত বঙ্গে

Advt